যুক্তরাষ্ট্রে যাত্রী নিয়ে ভেঙে পড়ল বিমান, নিহত ২

মার্কিন মুলুকে ফের বিমান দুর্ঘটনা। ট্রাম্পের দেশে মন্টানায় একটি ছোট বিমান দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল ২ জনের। আহত অবস্থায় হাসপাতালে আরও ১ জন। জানা গেছে, স্থানীয় সময় অনুসারে সিসি লেক বিমানবন্দরের উত্তরে শনিবার রাতে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

গত রবিবার ভোরে কর্তৃপক্ষ ওই ভেঙে পরা বিমানটি আবিষ্কার করে। খবর এনবিসি মন্টনা ও কলকাতা টোয়েন্টিফোরের।

দুর্ঘটনার জেরে মৃতদের মধ্যে একজন ওই বিমানের যাত্রী ও অপরজন পাইলট। মৃতদের মধ্যে একজনের নাম চার্লস ই ওলফ ও অপর জন ওয়েন ডি কাহুন।

এদের মধ্যে কে বিমান ওড়াচ্ছিল তা জানা যায়নি। জানা গেছে, ওই বিমানে করে অপর যাত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে যাওয়া হচ্ছিল। তাঁর শারীরিক অবস্থা কেমন, সে সম্পর্কে এখনও কোনও তথ্য জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

দ্য ন্যাশনাল ট্রান্সপোর্টেশন সেফটি বোর্ড জানিয়েছে, এটি একটি সিঙ্গেল ইঞ্জিনের চারজন যাত্রী বিশিষ্ট একটা প্লেন। বিমান দুর্ঘটনার বিষয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, করোনা আতঙ্কের জেরে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও, বহু দেশে এখন অন্তর্দেশীয় বিমান পরিষেবা শুরু হয়েছে। এছাড়া ব্যক্তিগত প্রয়োজনে উড়ান দিচ্ছে প্রাইভেট প্লেনগুলিও। এমনই একটি প্লেন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে।

নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত বাংলাদেশি অধ্যাপক

যুক্তরাষ্ট্রে ব্রাউন ইউনিভার্সিটি আলপার্ট মেডিকেল স্কুলের বাংলাদেশি আমেরিকান অধ্যাপক ডা. রুহুল আবিদ এবং তার অলাভজনক সংস্থা হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন ফর অল’কে (এইচএইএফএ) নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন দিয়েছে ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস বস্টন।

ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস বস্টনের নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জ্যঁ ফিলিপে বিলিউ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

২০২০ সালের নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য আবিদসহ মোট ২১১ জন মনোনয়ন পেয়েছেন।

অধ্যাপক ডা. রুহুল আবিদ ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে স্নাতক শেষে জাপানের নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মলিক্যুলার বায়োলজি অ্যান্ড বায়োকেমিস্টিতে পিএইচডি করেন।

২০০১ সালে তিনি হার্ভাড মেডিকেল স্কুল থেকে ফেলোশিপ করেন।

অধ্যাপক ডা. রুহুল আবিদ ব্রাউন গ্লোবাল হেলথ ইনিশিয়েটিভের নির্বাহী ফ্যাকাল্টি মেম্বার।
অধ্যাপক ডা. রুহুল আবিদের সংস্থা হেলথ অ্যান্ড এডুকেশন ফর অল বাংলাদেশে সুবিধাবঞ্চিতদের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে থাকে।

আফগানদের জন্য ভিসা আইন সহজ করে দিচ্ছে পাকিস্তান

আফগানিস্তানের নাগরিকদের জন্য ভিসা আইন শিথিল করতে যাচ্ছে পাকিস্তান। বিশেষ করে শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী, বিনিয়োগকারী, রোগীদের জন্য এই আইন শিথিল করা হবে বলে।

রোববার (১৩ সেপ্টেম্বর) আফগানিস্তানে পাকিস্তানের নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মনসুর আহমেদ খান এই কথা জানান।

তিনি বলেন, পাকিস্তান সরকার আফগানদের জন্য আরো বেশি সুবিধা দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। মূল লক্ষ্য হলো ভিসা ব্যবস্থা সহজ করা ও ব্যবসায়ীদের সুবিধা করে দেওয়া।

পাকিস্তানের সিনিয়র কূটনীতিক মানসুর এর আগে পররাষ্ট্র দফতরের আফগান ডেস্কে কাজ করেন এবং অস্ট্রিয়ায় রাষ্ট্রদূত ছিলেন।

কাবুল রওয়ানা হওয়ার আগে জানান যে তিনি শিক্ষা, বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও যুব বিষয়গুলোর উপর গুরুত্ব দেবেন। এর আগে উপ-রাষ্ট্রদূত হিসেবে আফগানিস্তানে দায়িত্ব পালন করেছেন তিনি।

আফগানিস্তানের ব্যাপারে নতুন ভিসা নীতি প্রণয়নের সঙ্গে জড়িত এক পাকিস্তানী কর্মকর্তা বলেন, প্রস্তাবগুলো চূড়ান্ত করা হয়েছে এবং কেন্দ্রিয় মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে।