মানবিক সেবায় প্রথম স্থানে তুরস্ক’

‘মানবিক সেবায় প্রথম স্থানে তুরস্ক’ ইমান টোয়েন্টিফোর ডটকম: তুর্কি রাষ্ট্রপতি রজব তাইয়েব এরদোগানের স্ত্রী, তুর্কি ফাস্ট লেডি আমিনা এরদোগান বিশ্ব মানবতার সহায়তা প্রদানে তুরস্কের প্রতি গর্ব করে বলেন, “মানবিক সহায়তা প্রদানের ক্ষেত্রে তুরস্ক বিশ্বের প্রথম স্থানে।”

তুরস্কের ফাস্ট লেডি আমিনা প্রেসিডেন্ট এরদোগানের সাথে নিউইয়র্কে জাতিসংঘের ৭৩তম সাধারণ অধিবেশনের আগমন করেন। সেখানে তুর্কিশ ইকোনমিক এন্ড সোশ্যাল রিসার্চ ফাউন্ডেশন (এসইটিএ) কর্তৃক আয়োজিত একটি প্যানেলে বক্তৃতা প্রদানকালে তিনি এ মত ব্যক্ত করেন।

তিনি বলেন, “তুরস্ক ভর্তুকির দরুন সংকটময় অবস্থানে থাকলেও মানবতার খাতিরে তাদের দৃষ্টি কখনোই ঋণগ্রস্থের দিকে নয়, বরং সহায়তার দিকে। আর এটা সীমাহীন উদারতার বহিঃপ্রকাশ।” তিনি বলেন, “আমরা সোমালিয়া, ইয়েমেন, সিরিয়া, গাজা ও মায়ানমারে জালেমের ছায়াতলে বসবাসরত ভাই-বোনদের পাশেই রয়েছি সর্বদা।”

বিশ্বের একটি একটি পরিসংখ্যান তিনি সবার সম্মুখে উপস্থাপন করেন, যেখানে উল্লেখ রয়েছে ২০১৭ সালে ১৩৪টি দেশে ২০১.৫ মিলিয়ন মানুষ যাদের মানবিক সহায়তার প্রয়োজন ছিল, “প্রকৃত পরিসংখ্যানগুলি অনেক বেশী।” এসব ক্ষেত্রে পারস্পারিক যুদ্ধ এবং দ্বন্দ্বের কারণে স্পষ্টত মানবতা লঙ্ঘন হচ্ছে। তিনি ব্যাখ্যা করেছিলেন যে, মিয়ানমার,

ফিলিস্তিনি গাজা ভূখণ্ড এবং অন্যান্য অনেক আফ্রিকান দেশে প্রয়োজনীয় মানবিক সহায়তা প্রদানের জন্য তুরস্ক সম্ভাব্য সবই করছে। তিনি পুরো বিশ্বে যুদ্ধ-বিধ্বস্ত মানুষদের অবস্থা বর্ণনা করে বলেন, তুরস্ক সকলের মৌলিক চাহিদা মেটাতে অক্ষম, তাই তিনি আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থাসমূহের বিশেষ দৃষ্টিপাত কামনা করেন। সূত্র: আনাদোলু এজেন্সি