আল্লাহ আজারবাইজানিদের সাহায্য করুন: এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান বলেছেন, এখন আজারবাইজানি ভাইয়েরা প্রতিকূল অবস্থায় যুদ্ধ করে তাদের অধিকৃত অঞ্চল মুক্ত করছে। আল্লাহ তাদের (আজারবাইজানিদের) সাহায্য করুন।

রোববার দলীয় কংগ্রেস সভায় দেয়া এক ভাষণে তিনি কথা বলেন। এ খবর জানিয়েছে তুর্কি সংবাদমাধ্যম ইয়েনি শাফাক।

এরগোগান বলেন, আমি বিশ্বাস করি তারা ফিরে আসবে এবং আর্মেনিয়ার দখল থেকে অধিকৃত ভূখণ্ড মুক্ত করবে। আমরা তাদের জন্য প্রার্থনা করছি। আশা করি তারা সফলভাবে এটি পাবেন।

‘আর্মেনিয়ার বিপক্ষে আমাদের আজারবাইজানের ভাইয়েরা বর্তমানে খুবই গুরুতর প্রতিকূল অবস্থায় যুদ্ধ করছে। তারা কেন প্রতিকূল অবস্থায় যুদ্ধ করছে? কারণ তারা আর্মেনিয়ার দখল থেকে আজারবাইজানের ভূখণ্ড মুক্ত করছে। ’

এ সময় (ওএসসিই) মিনস্ক গ্রুপের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন এরদোগান। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও ফ্রান্স আর্মেনিয়ার পাশে দাঁড়িয়েছে তাদের অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করছে।

আপার কারাবাখ সংঘাত শান্তিপূর্ণভাবে মীমাংসার জন্য দি অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কোঅপারেশন ইন ইউরোপ (ওএসসিই) মিন্সগ্রুপ ১৯৯২ সালে গঠন করা হয়েছিল, তবে এতে কোনো উপকার হয়নি।

তুর্কি প্রেসিডেন্ট জোর দিয়ে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও ফ্রান্স ৩০ বছর ধরে এ সমস্যার সমাধান করেনি এবং তারা আজারবাইজানি জনগণকে তাদের ভূমি হস্তান্তর করেনি।

দ্বিতীয়বারের মতো যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে তুমুল লড়াই চলছে। এরই মধ্যে আজারবাইজানের দ্বিতীয় বৃহত্তর গানজা শহরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে আর্মেনিয়া। উভয় দেশই পাল্টাপাল্টি হামলার অভিযোগ তুলছে।

২৭ সেপ্টেম্বর থেকে বিরোধীয় নাগোরনো-কারাবাখ নিয়ে আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান নতুন করে যুদ্ধে জড়ায়। পরবর্তীতে ১০ অক্টোবর রাশিয়ার মধ্যস্থতায় আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যে ম্যারথন আলোচনা হয়।

দ্বিতীয়বারের মতো শনিবার রাত থেকে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত হওয়ার পরপরই গানজাতে আর্মেনিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ১৩ জন বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে চারজন নারী ও তিনজন শিশু রয়েছে। এ ছাড়া হামলায় আহত হয়েছেন ৫০ জন।

কারাবাখ অঞ্চলটি আন্তর্জাতিকভাবে আজারবাইজানের ভূখণ্ড হিসেবে স্বীকৃত। তবে ওই অঞ্চলটি জাতিগত আর্মেনীয়রা ১৯৯০’র দশক থেকে নিয়ন্ত্রণ করছে। ওই দশকেই আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের সঙ্গে যুদ্ধে ৩০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়।

আজারবাইজানের স্বাধীনতা দিবসে শুভেচ্ছা জানালেন এরদোগান

আজ রোববার আজারবাইজানের স্বাধীনতা দিবস। এই উপলক্ষে এদিন এক ফেবু বার্তায় দেশটির প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ এবং জনগণকে ‘উষ্ণ অভিনন্দন’ জানিয়েছেন তুরষ্কের প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রী এরদোগান।

তিনি তার ফেজবুক পেজে বলেন, প্রিয় ভাই, প্রিয় বন্ধু আজারবাইজানের ১৮ অক্টোবর
স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

একটি জাতির ধারণা নিয়ে আমরা
আজারবাইজানকে সব এলাকায় সমর্থন অব্যাহত রাখব এবং দেশের লড়াইয়ে আমাদের ভাইদের সাথে থাকবাে।

আজ রোববার আজারবাইজানের স্বাধীনতা দিবস। এই উপলক্ষে এদিন এক ফেবু বার্তায় দেশটির প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ এবং জনগণকে ‘উষ্ণ অভিনন্দন’ জানিয়েছেন তুরষ্কের প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রী এরদোগান।

আজারবাইজানের স্বাধীনতা দিবসে ইমরান খানের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন

আজ রোববার আজারবাইজানের স্বাধীনতা দিবস। এই উপলক্ষে এদিন এক টুইট বার্তায় দেশটির প্রেসিডেন্ট ইলহাম আলিয়েভ এবং জনগণকে ‘উষ্ণ অভিনন্দন’ জানিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পাশাপাশি তিনি দেশটির সেনাবাহিনীর প্রতিও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

বিতর্কিত নাগরোনো-কারাবাখ অঞ্চল নিয়ে আজারবাইজান এবং আর্মেনিয়ার মধ্যকার সঙ্ঘাতের কথা উল্লেখ করে ইমরান বলেন, ‘আমরা আজেরি বাহিনীকে তাদের আঞ্চলিক অখণ্ডতা রক্ষার জন্য শ্রদ্ধা জানাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘের সুরক্ষা কাউন্সিলের প্রস্তাব অনুসারে নাগারনো-কারাবাখ ইস্যু সমাধানের লক্ষ্যে পাকিস্তান আজারবাইজানের পক্ষে দাঁড়িয়েছে।’

নাগরোনো-কারাবাখ আজারবাইজানের একটি বিচ্ছিন্ন এলাকা যেখানে প্রধানত জাতিগত আর্মেনীয়রা বসবাস করে। তাদের বেশিরভাগই ইয়েরেভানকে সমর্থণ করে। এই এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিয়ে গত মাসের ২৭ তারিখ থেকে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে মারাত্মক সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়।

শনিবার আর্মেনিয়া এবং আজারবাইজানের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়গুলোর পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, তারা মধ্যরাত থেকে ‘মানবিক সমঝোতা’ ঘোষণা করবে। যুদ্ধরত দুই পক্ষের জন্য এটি যুদ্ধবিরতির দ্বিতীয় প্রচেষ্টা।

গত শনিবার রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথে টেলিফোনে কথা বলেন এবং মস্কোতে অনুষ্ঠিত যুদ্ধবিরতি চুক্তিটি ‘কঠোরভাবে অনুসরণ করার প্রয়োজনীয়তার’ কথা তুলে ধরেন। এর পরেই সমঝোতার ঘোষণা আসে।

এ বিষয়ে রোববার পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বলেন, ‘পাকিস্তান আরও মানবিক সংকট রোধে আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যে সম্মত মানবিক চুক্তিকে স্বাগত জানিয়েছে। এটি শান্তি ও স্থিতিশীলতার জন্য ইতিবাচক উন্নয়ন।

আমরা আশা করি যে, দুই পক্ষই এই চুক্তির প্রতি স্মআন জানাবেন।’ তিনি আরও বলেন, ‘পাকিস্তান বিশ্বাস করে যে, দু’পক্ষের মধ্যে টেকসই শান্তি জাতিসংঘের সুরক্ষা কাউন্সিলের রেজুলেশনগুলির সম্পূর্ণ ও ব্যাপক প্রয়োগ এবং আজারবাইজানীয় অঞ্চল থেকে আর্মেনিয়ান বাহিনী প্রত্যাহারের উপর নির্ভর করবে।’

এর আগে, আর্মেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী নিকোল প্যাসিনায়ন দাবি করেছিলেন যে, পাকিস্তানি বিশেষ বাহিনী আজারবাইজান সেনাবাহিনীর পাশাপাশি লড়াই করছে। শনিবার পাকিস্তান এই দাবি ‘ভিত্তিহীন ও অযাচিত’ বলে প্রত্যাখ্যান করেছে।

এক বিবৃতিতে, পররাষ্ট্র দফতর আর্মেনিয়ার নেতৃত্বকে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন অপপ্রচার’ বন্ধ করতে এবং আজারবাইজানের আত্মরক্ষার অধিকারের পক্ষে সমর্থন দেয়ার কথা বলেছিল। সূত্র: ডন

কোয়ারেন্টাইনে পুরো কুরআন মুখস্ত করলেন ৬ বছরের হুনাইন

মাত্র ৬ বছরের কন্যা শিশু হুনাইন মুহাম্মাদ হাবিব। আলহামদুলিল্লাহ! এ ছোট্ট বয়সে পুরো কুরআনুল কারিম হেফজ করে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। তিন বছর বয়স থেকে কুরআনুল কারিম পড়া শুরু করলেও মহামারি করোনার সময়ে বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থেকেই সম্পূর্ণ কুরআন হেফজ সম্পন্ন করেছেন হুনাইন।

কুরআন নাজিলের দেশ সৌদি আরবের রিয়াদে বসবাসকারী কন্যা শিশু হুনাইন মুহাম্মাদ হাবিব। অল্প বয়সে কুরআন মুখস্ত করেছেন তিনি। মাত্র ৬ বছরেই সম্পন্ন করেছেন কুরআনুল কারিমের হেফজ।

তার কুরআন মুখস্ত সম্পর্কে তার মা জানান- ‘হুনাইন কুরআনুল কারিম হেফজ সম্পন্ন করবে, এটি ছিল তার একান্ত আশা। সে হিসেবেই তিন বছর বয়স থেকে হুনাইনকে কুরআন শেখানোর কাজ শুরুকরেন তিনি।’

প্রথমে দুই বছর বয়স থেকেই কুরআনুল কারিমের ছোট ছোট সুরা মুখাস্ত করাতে শুরু করি। যখন হুনাইনের বয়স তিন বছর হয় তখন থেকে তাকে নিয়মিত কুরআনুল কারিম মুখস্ত করার ক্ষেত্রে বাড়িতেই সময় দেয়া শুরু করেন বলেও জানান হুনাইনের মা।

بعمر 6 سنوات تروي قصة رحلتها مع ختم كتاب الله pic.twitter.com/32kKrpWIlE

— جمعية مكنون لتحفيظ القرآن بالرياض (@quraan_qk) October 12, 2020
তিনি আরও বলেন, মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে স্কুল-কলেজ বন্ধ থাকায় দীর্ঘ প্রায় ৭ মাস বাড়িতে কোয়ারেন্টাইন থাকতে হয়েছে। এই সময়টি হুনাইনের জন্য পুরো কুরআন মুখস্ত করতে সুযোগ তৈরি করে দিয়েছে। আর তাতে মাত্র ৬ বছর বয়সেই পবিত্র কুরআন মুখস্থ করার সৌভাগ্য অর্জন করে।

الطفلة حنين ذات الـ 6 سنوات تتمكن من حفظ القرآن الكريم كاملاً في إحدى المدارس التابعة لجمعية تحفيظ القرآن الكريم بالرياض.

– pic.twitter.com/GZ9kmdAVOF

— أخبار السعودية (@SaudiNews50) October 12, 2020
৬ বছরের হুনাইন সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদের ‌‘মাকনুন’ নামক একটি স্কুলে পড়া লেখা করে। স্কুলটির কুরআন হেফজ সেন্টারের নিয়মিত ছাত্রী ছিল হুনাইন। লকডাউনের বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থেকে মায়ের সহযোগিতায় পুরো কুরআন মুখস্ত করেন হুনাইন।

৭ মাস পর নামাজের জন্যে খুলে গেল মসজিদুল হারামের দরজা

মহামারি করোনা ভাইরাসের কারণে প্রায় ৭ মাস বন্ধ থাকার পর নিজ দেশের নাগরিক ও দেশটিতে বসবাসকারী বিদেশিদের মসজিদুল হারামে নামাজ পড়ার অনুমতি দিয়েছে সৌদি কর্তৃপক্ষ। দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিভিশন রোববার (১৮ অক্টোবর) সকালে এ তথ্য জানিয়েছে।

মহামারির কারণে মার্চ থেকে পবিত্র এ স্থানটিতে সীমিত আকারে নামাজ আদায় চললেও জামাত বন্ধ আছে। এতদিন সাধারণ মুসল্লিদের মসজিদে প্রবেশ করার অনুমতি ছিল না। শুধু ইমাম, মুয়াজ্জিনসহ মসজিদের কর্মচারীরা সেখানে নামাজ আদায় করতে পারতেন।

১৭ মার্চ এক ঘোষণায় সৌদি সরকার মক্কা ও মদিনার প্রধান দুই মসজিদ ছাড়া দেশটির বাকি সব মসজিদে জামাতে নামাজ স্থগিত করে নির্দেশ জারি করেছিল দেশটির কর্তৃপক্ষ। পরে এ দুটি মসজিদেও জামাতে নামাজ আদায় বন্ধ করা হয়।

৪ অক্টোবর প্রথম ওমরাহ যাত্রীদের জন্য মসজিদুল হারামের দুয়ার খুলে দেয়া হয়।
সৌদি আরবে রোববার পর্যন্ত ৩ লাখ ৪১ হাজার ৮৫৪ জনের মধ্যে মহামারির সংক্রমণ ধরা পড়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার ১৬৫ জনের।

বিশ্বের সঙ্গে ইরানের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা স্বাভাবিক হয়ে গেল

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন, ইরানের ওপর থেকে জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার ফলে গোটা বিশ্বের সঙ্গে ইরানের প্রতিরক্ষা সহযোগিতা স্বাভাবিক হয়ে গেছে।

এ ঘটনাকে ইরানসহ আন্তর্জাতিক সমাজের জন্য তাৎপর্যপূর্ণ অভিহিত করে আজ সকালে এক টুইটার বার্তায় তিনি বলেন, অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার ফলে বহুমুখী বিশ্বব্যবস্থা এবং মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ও নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠার পথে বিশ্ব আরেক ধাপ এগিয়ে গেল।

জারিফ তার টুইটার বার্তায় আরো বলেন, “আন্তর্জাতিক সমাজের জন্য আজ একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন; কারণ এই দিনে তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনৈতিক দাবি প্রত্যাখ্যান করে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ২২৩১ নম্বর প্রস্তাব রক্ষা করেছে।”

এদিকে ভিয়েনায় জাতিসংঘের সংস্থাগুলোতে নিযুক্ত ইরানের স্থায়ী প্রতিনিধি কাজেম গরিবাবাদি এক টুইটার বার্তায় বলেছেন, ইরানের সমরাস্ত্র কেনাবেচার ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে গেছে। কাজেই এখন থেকে কোনো দেশ ইরানের সঙ্গে সমরাস্ত্র লেনদেনের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞার অজুহাত তুলতে পারবে না।

এর আগে জাতিসংঘের অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ার ব্যাপারে আজ ভোর রাতে আনুষ্ঠানিক বিবৃতি প্রকাশ করেছে ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আজ (১৮ অক্টোবর) থেকে ইরান কোনো আইনগত বাধা ছাড়াই যেকোনো দেশের কাছ থেকে নিজের প্রয়োজনমতো অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম কিনতে এবং যেকোনো দেশের কাছে বিক্রি করতে পারবে। বিবৃতিতে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতিবাদ উপেক্ষা করে ইরান-বিরোধী পদক্ষেপ নেয়ার প্রচেষ্টা থেকে বিরত থাকার জন্য আমেরিকার প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে। সূত্র: পার্সটুডে