মাত্র এক বছরেই পুরো কুরআন মুখস্ত করলেন এই অন্ধ নারী

তুরস্কের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাত্রী রাভজানুর কাচাকার মাত্র ১২ মাসে কুরআন হেফজ করেছেন। প্রতিবন্ধকতা থাকা সত্ত্বেও তুরস্কের এই মেয়ে প্রতিদিন প্রতিদিন পবিত্র কুরআনের ১১ পৃষ্ঠা মুখস্থ করেছেন।

রাভজানুর কাচাকার তুরস্কের কারাপানার শহরের বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি হাইস্কুলে পড়াশোনা করছেন। ব্রেইল পদ্ধতিতে কুরআন পড়ে মাত্র ১২ মাসে কুরআন মুখস্ত করা সত্যিই বিস্ময়কর।

চোখে না দেখার প্রতিবন্ধকতা থাকলেও ব্রেইল পদ্ধতির কুরআন পড়ে প্রতিদিন কুরআনের ১১ পৃষ্ঠা পর্যন্ত মুখস্ত করেছেন তিনি। বিশ্বব্যাপী অনেক আরবি ও ইংরেজি গণমাধ্যম এ খবর প্রকাশ করে। তুরস্কসহ অনেক আরবি ও ইংরেজি গণমাধ্যম প্রতিদিন ১১ পৃষ্ঠা কুরআন মুখস্তের বিষয়টি তুলে ধরেন।

আমাদের সব বন্দি মুক্ত হওয়ার পর আলোচনায় বসব: তালেবান

আফগানিস্তানের তালেবান তাদের বন্দিদের মুক্তি বিলম্বিত করে শান্তি প্রক্রিয়াকে হুমকির মুখে না ফেলতে কাবুল সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। কাতারে তালেবানের রাজনৈতিক দফতরের মুখপাত্র সোহেল শাহিন এ আহ্বান জানিয়েছেন বলে অ্যারিয়া নিউজ খবর দিয়েছে।

সোহেল শাহিন বলেছেন, আফগান সরকার সব তালেবান বন্দিকে মুক্তি দিলে তারা সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় বসতে প্রস্তুত রয়েছেন। তালেবানের পক্ষ থেকে আফগান সরকারের বন্দিদের মুক্তি দেয়ার প্রক্রিয়া দ্রুত গতিতে চলছে বলে দাবি করেন এই মুখপাত্র।

তিনি বলেন, কিন্তু আফগান সরকারের পক্ষ থেকে তালেবান বন্দিদের মুক্তি দেয়ার প্রক্রিয়া ধীরগতিতে চলছে। সোহেল শাহিন তালেবান বন্দিদের মুক্তির প্রক্রিয়া বন্ধ না করার জন্য কাবুল সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, সেক্ষেত্রে শান্তি প্রক্রিয়াও বন্ধ হয়ে যাবে।

তালেবান মুখপাত্র এমন সময় এসব কথা বললেন যখন আফগান সরকারের মুখপাত্র সিদ্দিক সিদ্দিকি সোমবার কাবুলে এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনির সরকার এখন পর্যন্ত প্রায় ৪,০০০ তালেবান বন্দিকে মুক্তি দিলেও তালেবান মুক্তি দিয়েছে মাত্র ৭০০ সরকারি বন্দি।

তিনি বলেন, বন্দি মুক্তি দেয়ার বিষয়ে আফগান সরকার তার প্রতিশ্রুতি পালন করা সত্ত্বেও তালেবান আলোচনা বসতে রাজি হচ্ছে না।

দু’পক্ষের মধ্যে এক সমঝোতা অনুযায়ী, তালেবান এক হাজার সরকারি বন্দিকে মুক্তি দেয়ার বিনিময়ে তাদের পাঁচ হাজার বন্দিকে আফগান সরকারের কারাগার থেকে মুক্ত করবে।

দেশটির কয়েক দশকের সংঘর্ষ ও রক্তপাত অবসানে সরকারের সঙ্গে তালেবানের শান্তি আলোচনা শুরু করার প্রক্রিয়া এই বন্দি মুক্তির ওপর নির্ভর করছে। সূত্র: পার্সটুডে

লাদাখে সেনা প্রত্যাহার শুরু হলেও নতুন কৌশল চিনের?

লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকে চিনের সেনা প্রত্যাহারের কথা সোমবারই শোনা গিয়েছিল। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পরে গত ২২ এবং ৩০ জুন দুই সেনার কোর কমান্ডার স্তরের বৈঠকের ফলশ্রুতিতেই দুই দেশের সেনার ‘ডিসএনগেজমেন্ট’ প্রক্রিয়া শুরু হয় বলে জানা যায়।

রবিবার বিকেল থেকেই লালফৌজের তরফে পিছু হঠা শুরু হয়। এমতাবস্থাতেও কোন পরিবর্তন হচ্ছে না পূর্ব লাদাখের প্যাংগং টিসও, ও দৌলতবেগের কাছে দেপসাংয়ে’র পরিস্থিতির।

সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে ঐক্যমতে দুই দেশই, তবুও সমস্যা কোথায় ?

সূত্রের খবর, রবিবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রী ওয়াং ই’র সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেন ভারতের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। ওই ফোনালাপেও গালওয়ান থেকে সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে ঐক্যমতে পৌঁছায় দুই দেশই।

এরপর কেন্দ্রের তরফে জানানো হয় আপাতত কয়েকটি পেট্রোলিং পয়েন্ট থেকে উভয় দেশই সেনাদের পিছু হটিয়ে নিচ্ছে। তবে পূর্ব লাদাখের প্যাংগং লেক ও দেপসাংয়ে পরিস্থিতির কোনও পরিবর্তন কোনও তথ্য এখনও জানা যাচ্ছে না।

প্যাংগং লেক ও দেপসাংয়ে নতুন কৌশল নিতে পারে পিএলএ

এদিকে রবিবার থেকে শুরু করে গালোয়ানে পেট্রোলিং পয়েন্ট ১৪ থেকে তাদের সেনা ঘাঁটি সরিয়ে নিয়েছে চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মি। সূত্রের খবর, এদিকে পূর্ব লাদাখের হট স্প্রিং এলাকা থেকে তাদের সেনাবাহিনীকে ২ কিলোমিটার সরিয়ে নেওয়ার কাজ শেষ করেছে চিন।

এছাড়াও গালওয়ান উপত্যকার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা থেকেও সেনাদের ২ কিলোমিটার পিছনে সরিয়ে নিয়েছে তারা। পাশাপাশি বুধবার গোগরা থেকে সেনা সরিয়ে নেওয়ার কাজ শেষ হবে বলে জানা যাচ্ছে। তবে প্যাংগং লেক ও দেপসাংয়ে পিএলএ নতুন কোনও কৌশল অবলম্বন করছে বলেই মনে করছে কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহল। যদিও গোটা অঞ্চলেই বর্তমানে চিনের পিপলস লিবারেশনের আর্মির গতিবিধির জেরে সিঁদুরে মেঘ দেখছে ভারত। সূত্র: ওয়ান ইন্ডিয়া

ইসরায়েল এখন ভয়াবহ রাজনৈতিক সংকট ও সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় ঘাটতিতে

ইতিহাসের সবচেয়ে রাজনৈতিক সংকট ও সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় ঘাটতিতে পড়েছে ইসরায়েল। ঘাটতির পরিমান ইসরায়েলী মুদ্রায় ৫৮.২ বিলিয়ন নিস। গত বছর জুনেও এ ঘাটতি ছিল ২২ বিলিয়ন নিস। -জেরুজালেম পোস্ট, ইয়েনেট নিউজ, ইসরায়েল ন্যাশনাল নিউজ

ইয়েনেট নিউজ বলছে কোভিড মহামারী ও রাজস্ব আদায় হ্রাসের কারণে এত ব্যাপক আর্থিক ঘাটতিতে পড়েছে ইসরায়েল। ইসরায়েলি সরকারের জমে থাকা ঘাটতির পরিমান আরো বেশি এবং তা গত ১২ মাসে দাঁড়িয়েছে ৮৮ . ৪ বিলিয়ন নিস।

এ ঘাটতি ইসরায়েলের জিডিপি ’ র ৬ . ৪ শতাংশ। একই সঙ্গে বছরের ৬ মাস চলে গেলেও ইসরায়েলে এখনো বাজেট পাশ হয়নি কারণ এ বাজেট অনুমোদন দিতে প্রধামন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এবছরের শেষ পর্যন্ত সময় নিতে চাইলেও বিকল্প প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্তজ অধিক স্থিতিশীলতার জন্যে চাচ্ছেন দুই বছরের জন্যে বাজেট অনুমোদন দিতে।

অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকটের মূহুর্তে ইসরায়েলের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরেহ দেরি দেশটির সরকারকে সতর্ক করে বলেছেন জনগণ ও ইতিহাস আমাদের ক্ষমা করবে না যদি আমরা চতুর্থ নির্বাচনের আয়োজন করি। আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে।

উল্লেখ্য দেশটিতে সরকার গঠনে সংকট নিরসনে ইতিমধ্যে পরপর তিনটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ইসরায়েলি ২৪তম সংসদের প্রথম বৈঠকে নির্বাচন কমিটিকে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন , কোভিড সংকট আমাদের মনে করিয়ে দিচ্ছে আমরা সবাই সমান।

স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক কঠিন সংকট পার করছি। দেশটিতে এখন হাজার হাজার মানুষ বেকার। এ অবস্থায় নির্বাচন করার কোনো অভিপ্রায় মেনে নেয়া যায় না।

ইসরায়েল এখন ভয়াবহ রাজনৈতিক সংকট ও সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় ঘাটতিতে

জর্ডান উপত্যকা ও পশ্চিম তীরের সব বসতি সংযুক্ত করার ইসরাইলী পরিকল্পনা সর্বসম্মতভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতর, আইন প্রণেতা ও রাজনীতিকরা।

পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র আয়শা ফারুকি এই সংবাদ সংস্থাকে বলেন, ফিলিস্তিনের ব্যাপারে পাকিস্তানের নীতি অপরিবর্তনীয়। ইসরাইলের কোয়ালিশন সরকার পশ্চিম তীরকে সংযুক্ত করার যে পরিকল্পনা করছে তাতে আমরা উদ্বিগ্ন। খবর আনাদোলু এজেন্সি’র।

তিনি বলেন, অধিকৃত ফিলিস্তিনি ভূমির যেকোন সংযুক্তির বিরোধিতা করে ইসলামাবাদ। এটা আন্তর্জাতিক আইনের গুরুতর লঙ্ঘন এবং এতে ইতোমধ্যে অশান্ত হয়ে পড়া পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটবে।

১৯৬৭ সাল থেকে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ড অবৈধভাবে দখল করে আছে ইসরাইল।

মুখপাত্র বলেন, ফিলিস্তিনের ব্যাপারে জাতিসংঘ ও ওআইসি’র গ্রহণ করা প্রস্তাবগুলো সমর্থন করে পাকিস্তান এবং ফিলিস্তিনীদের অধিকার সমুন্নত করতে এগিয়ে আসার জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানায়।

পাকিস্তান পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষের ডেপুটি চেয়ারম্যান সালিম মানদিভিওয়ালা বলেন, ইসরাইলের এই পরিকল্পনার ব্যাপারে তার দেশ চুপ থাকতে পারে না এবং ফিলিস্তিনিদের প্রতি অব্যাহত সমর্থন দিয়ে যাবে।

আরো পড়ুন-করোনাকে অস্বীকার করে নিজেই আক্রান্ত হলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

করোনাকে অস্বীকার করে নিজেই আক্রান্ত হলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট
করোনাকে প্রথমে পাত্তাই দেননি তিনি। এমন কি করোনাভাইরাসকে ভাওতাবাজি বলেও উল্লেখ করেছিলেন। কিন্তু এবার তিনি নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তিনি ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) ব্রাজিলের স্থানীয় সময় দুপুরে তিনি নিজেই এই তথ্য জানিয়েছেন। আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম গার্ডিয়ান এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

জাইর বলসোনারো বলেন, ‘ভয়ের কোন কারণ নেই। এটাই জীবন। এবং জীবন চলমান। আমার জীবন ও ব্রাজিলের ভবিষ্যত বিনির্মাণে যে দায়িত্ব ঈশ্বর দিয়েছেন তার জন্যে তাকে ধন্যবাদ।’
এর আগে সোমবার (৬ জুলাই) জাইর করোনা উপসর্গ থাকায় পরীক্ষা করান।

ওই সময় প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো বলেছিলেন, ফুসফুসের পরীক্ষা করিয়ে এই মাত্র হাসপাতাল থেকে ফিরলাম। ফুসফুস ঠিক আছে। কভিড-১৯ উপসর্গ থাকায় পরীক্ষা করিয়েছি , কিন্তু সব ঠিক আছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো শুরু থেকে করোনাকে পাত্তা দেননি। তিনিও ট্রাম্পের সুরে সুর মিলিয় কথা বলেছেন। তবে এখন তাকেও মাস্ক পরতে দেখা যাচ্ছে। কিছুদিন আগে শতশত মানুষ নিয়ে রীতিমতো র‌্যালিতে হেঁটেছেন তিনি।

নভেল করোনাভাইরাসে ব্রাজিলের অবস্থা দিনকে দিন খারাপ হচ্ছে। আন্তর্জাতিক জরিপকারী সংস্থা ওয়ার্ল্ডওমিটারের হিসাব অনুযায়ী আক্রান্ত এবং মৃতের তালিকায় তারা দ্বিতীয় স্থানে। শীর্ষে যুক্তরাষ্ট্র।

লাতিন আমেরিকার সবচেয়ে বড় দেশটিতে এখন পর্যন্ত মোট আক্রান্ত ১৬ লাখ ২৬ হাজার ৭১ জন। মারা গেছেন ৬৫ হাজার ৫৫৬ জন। সুস্থ হয়েছেন ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৫ জন।