কাবা শরিফের নামাজের ছবিতেই আন্তর্জাতিক শ্রেষ্ঠ পুরস্কার!

পবিত্র কাকাবা শরিফের নামাজের ছবিতেই আন্তর্জাতিক শ্রেষ্ঠ পুরস্কার!বা শরিফের নামাজের অসাধারণ দৃশ্য ক্যামরায় ধারণ করে আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেলেন সৌদি আরবের আলোকচিত্র শিল্পী আম্মার আল আমির। আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র সংগঠন ‘সিয়ানা’ কাবা শরিফের নামাজের একটি ছবিকে ‘উত্তম চরিত্র’ ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ ছবির মর্যাদা দেয়।

ইতালিতে অনুষ্ঠিত হয় এ আন্তর্জাতিক আলোকচিত্র প্রদর্শনী ‘সিয়ানা। এতে শ্রেষ্ঠ আলোকচিত্র শিল্পী হিসেবে মনোনীত হয় আম্মার আল আমির-এর তোলা কাবা শরিফের নামাজের এ চিত্রকর্ম। কাবা শরিফে নামাজের দৃশ্যের এ ছবিতে দেখা যায়, ‘সাদাশুভ্র ইহরামের পোশাক পরিহিত অত্যন্ত বিনয়াবনত হয়ে ইসলামের প্রধান ইবাদত নামাজ পালনে দাঁড়িয়ে আছে হজ ও ওমরাহ পালনকারীরা।

অসাধারণ এ মুহূর্তের ছবিটিই ক্যামেরায় ধারণ করেন সৌদি আরবের আলোকচিত্র শিল্পী ওমার আল আমির। তিনি এ ছবিটি আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের সামনে তুলে ধরেন। যা দেখামাত্র সবার হৃদয়ে ঝড় তোলে। যা তাকে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উত্তম ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ ছবির পুরস্কার এনে দেয়।

আলোকচিত্র শিল্পী আম্মার আল আমির এ ছবিকে শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার দেয়া এটিকে মুসলিমদের গর্ব বলে মনে করেন। আম্মার আল আমির বলেন, ‘ক্যামেরা এবং পেশাদার আলোকচিত্র আমার কাছে খুবই পছন্দের। আমার এই ছবি কা’বা শরীফ কতৃপক্ষ অনন্য নিদর্শন হিসেবে প্রদর্শনের চেষ্টা করছে।

কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে সমর্থনকারী সবাই পাকিস্তানের শত্রু: পাকিস্তানী মন্ত্রী

ভারতীয় সংবিধান সংশোধনের মাধ্যমে ভূস্বর্গ খ্যাত জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করায় অঞ্চলটিতে ইতোমধ্যে এক থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। যা নিয়ে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর মধ্যেও সৃষ্ট হয়েছে উত্তেজনা। এবার ইস্যুটিতে ভারতকে সমর্থনকারী দেশের দিকে ক্ষেপণা’স্ত্র (মি’সাইল) হা’মলা চালানোর হু’মকি দিয়েছে পাকিস্তান।

দেশটির কাশ্মীর বিষয়ক ও গিলগিট বালতিস্তানের মন্ত্রী আলি আমিন গান্ডাপুরের মতে, ‘কাশ্মীর ইস্যুতে যেসব দেশ ভারতকে সমর্থন জানাবে, তারা সবাই পাকিস্তানের শত্রু।’

গতকাল মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানী ইসলামাবাদে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের মন্ত্রিসভার এই সদস্য হু’মকিটি দেন। যেখানে তিনি বলেছেন, ‘কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আন্তর্জাতিক মহল এখন পর্যন্ত চুপ রয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে যেমনভাবে এই দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা ছড়াচ্ছে, তাতে যে কোনো পরিস্থিতিতে ভারতের বিরুদ্ধে যু’দ্ধের ঘোষণা আসতে পারে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এখন থেকে যেসব দেশ কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানের সঙ্গে থাকবে না, তারা সবাই তাদের এই পদক্ষেপের মাসুল গুনবে। কারণ যু’দ্ধ শুরু হলে, প্রথমে সেইসব দেশের দিকেই ক্ষেপণা’স্ত্র ছোঁড়া হবে।’

মূলত এর পরপরই সেই পাক মন্ত্রীর বক্তৃতাটির কিছু অংশ টুইট করেছেন পাকিস্তানের খ্যাতনামা সাংবাদিক নায়লা ইয়ায়েত। যার প্রেক্ষিতে এরই মধ্যে দেশ-বিদেশে ইমরান খানের মন্ত্রিসভার এই সদস্যকে নিয়ে শুরু হয়েছে ব্যাপক সমালোচনার ঝড়।