৫৩ দিনে সাইকেল চালিয়ে ওমরায় গেলেন তিউনিশিয়ার এক নারী!

তিউনিশিয়া থেকে মাত্র ৫৩ দিনে সাইকেল চালিয়ে একাই ওমরায় গেলেন এক নারী। তার নাম সারা হাবা। দ্যা নিউ আরব নিউজ এর বরাতে জানা যায়, সাইকেল চালিয়ে একা একা সারা হাবা তার দেশ তিউনিশিয়া থেকে সৌদি আরব পৌঁছেছেন মাত্র ৫৩ দিনে।

এ সফরকালে সারা হাবা বেশিরভাগ মিশর ও সুদানের মরুভূমি পেরিয়ে সাইকেল চালিয়ে যাত্রা করেছেন। সাইক্লিংটোমেকা নামক হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে তার যাত্রা অনলাইনে আপডেট করেছেন। তিনি তার সাইকেলের নামও রাখেন মেরজুগা বলে।

তিনি ইনস্টাগ্রামে লিখেছিলেন, আমি আল্লাহর ঘর অভিমুখে এ যাত্রায় একটি মুহূর্তের জন্যও থামিনি। আমার শরীর আমার ইচ্ছা শক্তিকে টেনে নিচ্ছিল। এত অল্প সময়ে আমি সফর শেষ করতে পারবো ভাবতেও পারিনি। সৌদি আরবের আইন অনুযায়ী ৪৫ বছরের কম বয়সী যে কোনও নারী ওমরা বা হজ আদায় করতে মাহরামের সাথে যেতে হবে।

তিনি বলেন, ধর্মীয় রক্ষণশীল দেশে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছিলাম। তিনি আরো বলেন, সৌদি আরবে তো পৌঁছেছি কিন্তু আমি মক্কা শহরে ঢুকতে পারবো কি না সে বিষয়ে যতেষ্ট সন্দেহ ছিলো। পরে তিনি তার সফরের কথাও বলেছিলেন, তিনি টানা ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা সাইকেল চালিয়েছিলেন। আর যখন তিনি মরুভূমি পাড় হচ্ছিলেন, তখন তার সাইকেল নষ্ট হয়ে গিয়েছিলো। তার সাইকেলটি তিনি নিজেই ঠিক করেন।

সারা হাবা একা ভ্রমণ করেছিলেন, এটা যখন অনলাইন দুনিয়ায় ভাইরাল হয়। শত শত লোক তাকে দেখতে ভিড় করেছিলো। লাগাতার ১৬দিন সাইকেল চালানোর পর তিনি সুদানে বন্দরে পৌঁছেছিলেন, যেখানে এক নারীর সঙ্গে তার সাক্ষাৎ হয়। সে নারী তারসঙ্গে ২০০ কিলোমিটার পথ সাইকেলে ভ্রমণ করেছিলেন।

এছাড়া রাস্তায় আমাকে অনকে মানুষ নানান খাবার হাদিয়া দিয়েছেন। আমি আল্লাহর ঘরের যাত্রী জেনে মানুষ আমাকে যেভাবে দোয়া দিয়েছিলো, আমি সত্যিই অভিভূত হয়েছি। আমার এ কষ্ট আল্লাহ কবুল করুন এ কামনা করি।

“আমেরিকার সঙ্গে সুর মিলিয়ে যারা মধ্যপ্রাচ্যের বীরদের সন্ত্রাসী বলবে এ অঞ্চলে তাদের স্থান হবে না”

তেহরানে নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ
তেহরানে নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ
ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ বলেছেন,

আমেরিকার সঙ্গে সুর মিলিয়ে যারা মধ্যপ্রাচ্যের বীর সেনানীদের সন্ত্রাসী বলবে এ অঞ্চলে তাদের কোনো স্থান নেই।তিনি সোমবার বিকেলে তেহরানে নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদের এক সমাবেশে বক্তব্য দেয়ার সময় এ মন্তব্য করেন।

ইসলামি বিপ্লবের ৪১তম বিজয় বার্ষিকী উপলক্ষে বিদেশি কূটনীতিকরা প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন এবং এ সময় তাদের উদ্দেশে জারিফও বক্তব্য রাখেন।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, কেউ কেউ ৪১ বছর ধরে ইসলামি প্রজাতন্ত্রের পতন কামনা করে এসেছে এবং এই কামনার ওপর ভিত্তি করে ইরানের ব্যাপারে নিজের ভুল ও অন্যায় নীতিতে অটল রয়েছে।

তেহরানে নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদের একাংশ
ইরান সম্পর্কে আংশিক বা পুরোপুরি ভুল ধারনার কারণে কিছু দেশ যে নীতি গ্রহণ করেছে তাকে ‘ভয়ঙ্কর’ উল্লেখ করে জারিফ বলেন, মার্কিন হামলায় শহীদ ইরানি জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও তার সহযোদ্ধাদের জানাযার নামাজে লক্ষ-কোটি জনতার উপস্থিতি প্রমাণ করে আমেরিকার প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের জনগণের মনে ঘৃণা ও ক্ষোভের আগুন দাউ দাউ করে জ্বলছে।

আমেরিকা এই বাস্তবতাগুলো উপলব্ধি করবে এমন আশা তেহরান করে না বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী জারিফ। বিদেশি কূটনীতিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন,পশ্চিমা দেশগুলোকে একথা উপলব্ধি করতে হবে যে, তারা ইরানের ব্যাপারে কোথায় কোথায় ভুল করেছে, এ ভুলের কারণ কি এবং তা কিভাবে সংশোধন করা যায়।