ইসরাইলে ৩০ মিনিটে ৯০টি রকেট ছুড়েছে ফিলিস্তিন

ইসরাইলে ভয়াবহ রকেট হামালা চালিয়েছে ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।শনিবার দক্ষিণ ইসরাইলে ৩০ মিনিটের মধ্যে ৯০টি রকেট ছুড়েছে ফিলিস্তিনিরা।এ খবর জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

তবে এতে এখন পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর জানা যায়নি। বেশকিছু রকেট গুলি করে ভূপাতিত করার দাবি করেছে ইসরাইল।এছাড়া ফিলিস্তিনের হামলার ভয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে চলে গেছেন অনেক ইসরাইলি নাগরিক।

হামাস ও ইসরাইলের মধ্যে একটি দীর্ঘমেয়াদি অস্ত্রবিরতির চেষ্টা করে যাচ্ছে মিসর। গত একদশকে এই দুই পক্ষের মধ্যে অন্তত তিনটি যুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে।

এর আগে গাজায় চার ফিলিস্তিনিকে হত্যা করেছে ইসরাইলি বাহিনী।উপত্যকাটির সীমান্তে বিক্ষোভকালে গুলি করে হত্যা করা হয় দুই প্রতিবাদীকে। এছাড়া ইসরাইলি বিমান হামলায় আরও দুই ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন।খবর গার্ডিয়ানের।

ইসরাইলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে, এছাড়া ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে লড়াইয়ে দুই তাদের দুই সেনা আহত হয়েছে। বিক্ষোভকারীরা উপত্যকাটিতে মিসর ও ইসরাইলের এক দশকের অবরোধ উঠিয়ে নেয়ার দাবি জানিয়ে আসছে।

১৯৪৮ সালে ইসরাইল প্রতিষ্ঠার সময় ইহুদি স্নাইপারদের হত্যাযজ্ঞের মুখে কয়েক লাখ ফিলিস্তিনি নিজেদের বসতবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যেতে বাধ্য হন।

এরপর ২০১৮ সালের ৩০ মার্চ থেকে ফিলিস্তিনিরা নিজেদের বসতবাড়িতে ফেরার অধিকার দাবিতে প্রতি শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিল করে যাচ্ছে।এ আন্দোলনে প্রাই গুলি চালায় ইসরাইলি বাহিনী।ইসরাইলি গুলিতে এ পর্যন্ত প্রায় দুই শতাধিক ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে।

আরো পড়ুন: পৃথিবীর সব নারীকে হিজাব পরা উচিৎ: অস্ট্রিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার

পৃথিবীর সব নারীকেই বছরে অন্তত একদিন হিজাব পড়ার আহ্বান জানিয়েছেন অস্ট্রিয়ার প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার ভেন ডার ব্যালেন। তিনি বলেন, ‘মুসলিম নারীদের সহমর্মীতা জানাতে সব নারীকেই বছরে একদিন হিজাব পড়া উচিৎ।’

অস্ট্রিয়ার প্রেসিডেন্ট বলেন, একজন নারী কিভাবে নিজেকে সজ্জিত করবে তা কেবল ওই নারীরই ব্যপার। আর এ ব্যপারে হস্তক্ষেপ করা মোটেও উচিৎ নয়।

তিনি মুসলিম নারীদের হিজাব পড়াকে একান্তই নিজস্ব বলে মনে করেন। তিনি বলেন, এখানে নাক গলাবার অধিকার কারোরই নেই।

গত ডিসেম্বরের নির্বাচনে অস্ট্রিয়ান নাগরিকেরা বামপন্থী আলেক্সান্ডার ভেন ডার বেলেন’কে তাদের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করে। দেশটিতে ডানপন্থী ফ্রিডমপার্টির উত্থান মোকাবিলার প্রচেষ্টা হিসেবে গত জানুয়ারীতে মুসলিম নারীদের সারা মুখ ঢেকে রাখে এমন হিজাব ব্যবহার নিষিদ্ধ করা হয়।

তবে, অস্ট্রিয়া সহ পশ্চিমা দেশগুলোতে মুসলিমদের প্রতি যে ভীতি তৈরী হয়েছে তা আসলে অবান্তর মনে করেন আলেক্সান্ডার। মূলত একাত্মতা জানানোর মধ্য দিয়েই এই ভীতি দূর করা সম্ভব।

এদিকে, রাজধানী ভিয়েনায় ইউরোপিয় ইউনিয়নের হাউসে বক্তব্য দেওয়ার সময় আলেক্সান্ডার বলেন, ‘এটা নারীদের অধিকার। নিজেকে কেমন করে তারা সাজাবে এটা একান্তই তাদের ব্যপার।’ তিনি আরও বলেন, ‘এমন দিন হয়তো আসবে যে, আমরা সব নারীকেই হিজাব পড়তে বলবো।’