ফিলিস্তিনি ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ৬ ইসরাইল সেনা গুরুতর আহত

মধ্যপ্রাচ্যের কথিত মুসলিম রাষ্ট্র সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইনের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরের অনুষ্ঠান চলাকালে ইহুদিবাদী দখলদার রাষ্ট্র ইসরায়েলে ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছিল। যদিও এ জন্য নিরস্ত্র ফিলিস্তিনিদেরই দোষারোপ করছে তেলআবিব।

ভয়ঙ্কর রকমের সেই হামলায় অন্তত ৬ জন ইহুদি সেনা গুরুতর আহত হয়েছে। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে গোটা বিশ্বের মুসলমানদের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতার মাধ্যমে ইসরায়েলের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে আমিরাত ও বাহরাইন।

ফিলিস্তিনি সূত্রগুলো জানিয়েছে, ইসলামের শত্রু ইসরায়েলের আশকেলন ও আশদুদ উপশহরে কয়েকটি ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়েছে। ফিলিস্তিনের প্রতিরোধ সংগ্রামীরা এসব ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। বিশ্বাসঘাতকতার চুক্তির প্রতিবাদে তারা এই হামলা চালিয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের আবাসিক দপ্তর হোয়াইট হাউসে (বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার রাত ১০টায়) চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন আমিরাতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল্লাহ বিন জায়েদ আলে নাহিয়ান এবং বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিন রাশেদ আল যিয়ানি।

মুসলমানদের প্রথম কেবলা মসজিদুল আকসার দখলদার ইসরায়েলের পক্ষে চুক্তিতে সই করেছেন বর্ণবাদী প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

ফিলিস্তিনের সব দল ও সংগঠন এবং আপামর জনসাধারণের প্রতিবাদ উপেক্ষা করে চুক্তিতে স্বাক্ষর করল এই দুই মুসলিম দেশ। এ নিয়ে এ পর্যন্ত চারটি আরব দেশ দখলদার রাষ্ট্রটির সঙ্গে আনুষ্ঠানিক সম্পর্ক স্থাপন করল। বিশ্বের বিভিন্ন মুসলিম দেশ ও সাধারণ মুসলমানেরা এই চুক্তির প্রতিবাদ জানিয়েছে এবং বিক্ষোভ করেছে।

নির্যাতিত ফিলিস্তিনিরা বলেছে, আরব আমিরাত ও বাহরাইন ফিলিস্তিনিদের পিঠে ছুরিকাঘাত করেছে। ইসলাম বিরোধী শক্তির স্বার্থ রক্ষার্থে এটা করা হয়েছে বলে তারা মন্তব্য করেছে