ফিলিস্তিনের সব রাজনৈতিক দল এক মঞ্চে!

আশপাশের কিছু আবর দেশ বিশ্বাসঘাতকতা করছে ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে। ফিলিস্তিন জনগণের দাবি তাদের স্বাধীনতা আন্দোলনকে ক্ষতিগ্রস্থ করতেই তারা ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্থান করছে।

এদিকে আরব দেশগুলো ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার পথে হাঁটায় এবার ফিলিস্তিনের রাজনৈতিক দলগুলো নিজেদের মধ্যে ঐক্য গড়ে তুলতে কাজ শুরু করেছে। গাজা উপত্যকা ও পশ্চিম তীরের রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে যে বিরোধ চলে আসছে এবার তা অবসানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) হোয়াইট হাউজে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতে ইসরাইলের সঙ্গে শান্তিচুক্তিতে স্বাক্ষর করবে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। আরব দেশগুলো দীর্ঘদিন ধরে ফিলিস্তিনে ইসরাইলের আগ্রাসন বন্ধ ও দ্বিরাষ্ট্র সমাধানের যে দাবি জানিয়ে আসছিল এই চুক্তি তার ওপর বড় আঘাত বলে বিবেচনা করা হচ্ছে।

শনিবার ফিলিস্তিনের রাজনৈতিক দল হামাস ও ফাতাহ মতামতের সব দূরত্বের অবসান ঘটিয়ে ‘সম্মিলিত নেতৃত্বে’ কাজ করতে সম্মত হয়েছে। ইসরাইলের দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে ‘ব্যাপক জনপ্রিয় প্রতিরোধ’ গড়ে তুলতেই তারা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

এর আগে গত ৩ সেপ্টেম্বর জোট গঠনের বিষয়ে দখলকৃত পশ্চিম তীর ও লেবাননের বৈরুতে ফাতাহ’র প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস, হামাসের ইসমাইল হানিয়া, ইসলামিক জিহাদের প্রধান জিয়াদ আল-নাখালা এবং ফিলিস্তিনের অন্যান্য রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠক হয়। এই জোট গঠনের বিষয়ে বহু আগেই আহ্বান জানিয়ে আসছিল হামাস।

তবে হামাসকে আগে প্রাক্তন ঐক্যচুক্তিকে শ্রদ্ধা প্রদর্শন করতে হবে দাবি করে সেই আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছিলেন মাহমুদ আব্বাস। তবে ইসরাইলের সঙ্গে আমিরাতের শান্তিচুক্তির পর আব্বাস তার আগের অবস্থান থেকে ফিরে আসার ঘোষণা দেন।

ফিলিস্তিনের পবিত্র নগরী জেরুজালেমে মসজিদ ভাঙার আদেশ ইসরাইলের

ফিলিস্তিনের পবিত্র নগরী জেরুজালেমে একটি মসজিদ ভাঙার আদেশ দিয়েছেন ইহুদিবাদী রাষ্ট্র ইসরাইলের একটি আদালত। সোমবার সিলওয়ান শহরের কাক্কা বিন আমর মসজিদটি ভাঙার ওই আদেশ দিয়েছেন আদালত। খবর আনাদোলু ও আলজাজিরার।

মসজিদ কর্তৃপক্ষ এ আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করার জন্য ২১ দিন সময় পাবে। আরব লিগ ও ওআইসিসহ বিশ্বে মুসলিম দেশগুলোকে ইসরাইলি আগ্রাসন বন্ধে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিছেন ফিলিস্তিনিরা।

২০১২ সালে নির্মিত দোতলা ওই মসজিদটিতে শত শত মুসল্লি নামাজ আদায় করেন। ২০১৫ সালেও মসজিদটি ভেঙে ফেলার জন্য আদেশ জারি করা হয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত আর ভাঙা হয়নি।

সিলওয়ান ভূমি রক্ষার কমিটির সদস্য খালেদ আবু তাইহ জানান, দখলদার ইসরাইল বেশ কয়েক বছর ধরে মসজিদটিকে টার্গেট করে আসছে। এর আগে মসজিদটিকে জরিমানা করা হয়েছে এবং মসজিদের কাজ আটকানোর চেষ্টা করা হয়েছে।

ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি জেরুজালেমে তাদের ধ্বংসযজ্ঞের অভিযান তীব্র করেছে। সিলওয়ান এলাকায় ফিলিস্তিনিদের কয়েক ডজন বাড়িঘর ভেঙে গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

ধর্ষকদের খোঁজা ও প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়ার আহ্বান ইমরান খানের

পাকিস্তানে ধর্ষকদের খোঁজা করে দেওয়া এবং প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। গত সপ্তাহে পাঞ্জাবের মহাসড়কে সন্তানদের সামনে এক মাকে গণধর্ষণের অভিযোগ ওঠার পর দেশ জুড়ে বিক্ষোভ চলছে। গতকাল ধর্ষণের সঙ্গে জড়িত দ্বিতীয় ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।

এরই মধ্যে গতকাল প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেন, ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত। ধর্ষকদেরকে রাস্তার কোনো মোড়ে প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়া উচিত।

তিনি বলেন, হত্যাকাণ্ডকে যেমন বিভিন্ন ডিগ্রিতে (প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয়) ভাগ করা হয়, তেমনি ধর্ষণের বিচারকেও করা উচিত। প্রথম ডিগ্রির ধর্ষকদের রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে খোঁজা করে পুরোপুরি অক্ষম করে দেওয়া উচিত বলে মনে করেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

সুত্র: আলজাজিরা

লাদাখ সীমান্তে অপটিক্যাল ফাইবার কেবল পাতছে চীন, চিন্তা বাড়ছে ভারতের

লাদাখ সীমান্তে যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করতে এবার অপটিক্যাল ফাইবার কেবল পাতছে চীন। সরকারের দুই শীর্ষ সূত্রকে উদ্ধৃত করে এনডিটিভি-র একটি রিপোর্টে এমনই দাবি করা হয়েছে। উপগ্রহ চিত্র থেকেই কেন্দ্রীয় গোয়েন্দাদের হাতে এমন তথ্য এসেছে।

চীনের এই পদক্ষেপ দেখে বিশেষজ্ঞদের ধারণা, কূটনৈতিক স্তরে যতই উচ্চপর্যায়ের আলোচনা চলুক না কেন, লাদাখে দীর্ঘদিন ধরেই সংঘাতের পরিস্থিতি বজায় রাখার প্রস্তুতি নিচ্ছে চীন।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, এই অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে যোগাযোগ স্থাপন করলে অনেক নিরাপদভাবে তথ্যের আদান-প্রদান করা যায়৷ যা সহজে চুরি করা যায় না।

ফরওয়ার্ড পোস্টে থাকা বাহিনীর সঙ্গে সেনাঘাঁটির যোগাযোগ রক্ষার জন্যই অপটিক্যাল ফাইবার কেবল পাতা হচ্ছে।
আপাতত প্যাংগং তাসো লেকের দক্ষিণে নিজেদের এলাকায় এই ধরনের কেবলের ফাঁদ পাতার কাজ চীন শুরু করেছে। বিষয়টি নিয়ে সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের পক্ষ থেকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে জানতে চাইলে কোন মেলেনি।

এই মুহূর্তে প্যাংগং তাসো লেকের দক্ষিণে বেশ কয়েকটি জায়গায় মাত্র কয়েকশো মিটারের ব্যবধানে অবস্থান করছে চীন এবং ভারতের সেনাবাহিনী। এই অবস্থায় অপটিকাল ফাইবার কেবলের মাধ্যমে চীনা সেনারা দ্রুত তথ্যের আদান-প্রদান করতে সক্ষম হলে তা ভারতীয় বাহিনীর কাছে উদ্বেগেরই বিষয়।

এক সরকারি কর্মকর্তার দাবি, কয়েক মাস আগে প্যাংগং তাসো লেকের উত্তর দিকেও চীনা ভূখণ্ডের মধ্যে একই ধরনের কেবল পাতা রয়েছে বলে জানতে পেরেছিল ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। এবার প্যাংগং লেকের দক্ষিণে অত্যন্ত দ্রুত গতিতে সেই কাজ সারছে চীন৷

যোগাযোগ রক্ষার জন্য ভারতীয় সেনাবাহিনী রেডিও কমিউনিকেশনের উপরেই নির্ভরশীল। এই যোগাযোগের মাধ্যমে কী তথ্য আদান-প্রদান হচ্ছে, শত্রুপক্ষ আঁড়ি পেতে তা জেনে নিতে পারে।

কিন্তু অপটিক্যাল ফাইবারের ক্ষেত্রে সে রকম কোনও আশঙ্কা নেই বললেই চলে। পাশাপাশি অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে ছবি, ডকুমেন্ট আদান-প্রদান করা সম্ভব।
বিডি প্রতিদিন