ফিলিস্তিনের শীর্ষ কমান্ডার আল-আত্তারকে হ’ত্যা করেছে ইসরাইল

ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাসের শীর্ষস্থানীয় কমান্ডার বাহা আবু আল-আত্তারকে হ’ত্যা করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। মঙ্গলবার ভোরে গাজা উপত্যকায় তার নিজ বাড়িতে বো’মা হা’মলা চালিয়ে তাকে হ’ত্যা করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে হামাস।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে রয়টার্স জানায়, কমান্ডার নি’হত হওয়ার পরপরই ইসরাইলি ভূখণ্ডে প্রতিশোধমূলক রকেট হা’মলা চালিয়েছে হামাস। তবে এতে হ’তাহ’তের কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক শক্তিশালী গণমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৪ সালের যু’দ্ধের পর ইসরায়েলের সঙ্গে যু’দ্ধবিরতি চুক্তি মেনে চলছে গাজা উপত্যকার ক্ষম’তাসীন দল হামাস। ফলে নতুন এই হ’ত্যাকাণ্ড দলটির জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ তৈরি করতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

হামাস বলেছে, মঙ্গলবার ভোরে গাজা উপত্যকার শেজাইয়া জেলায় কমান্ডার বাহা আবু আল-আত্তার বাড়িতে বো’মা হা’মলা চালায় ইসরাইলি সামরিক বাহিনী। এ সময় তাদের ছোড়া বো’মা ভবনের ভেতরে বি’স্ফোরিত হয়। এতে কমান্ডার আল-আত্তা নি’হত এবং আরও দুজন আ’হত হন।

কোরআনের বাণী সবার হাতে পৌঁছে দিতে পর্তুগালে বিনামূল্যে কোরআন বিতরণ!

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে আল কোরআন মেমোরাইজিং সেন্টারের উদ্যোগে ফ্রিকোরআনবিতরণ করা হয়েছে। পর্তুগালের স্থানীয় সময় শনিবার রাতে লিসবনের কাজা দ্য কবিলহা হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত কমিউনিটি ব্যক্তিবর্গের মাঝে কোরআন শরিফ ফ্রি বিতরণ করা হয়।

এতে বাংলা, ইংরেজি ও আরবী তিন ভাষায় অনুদিত কোরআন শরিফ বিতরণ করা হয়। তাহের আহমেদ চৌধুরির সভাপতিত্বে মহিউদ্দিন সুমনের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সেন্ট্রাল মসজিদ লিসবনের ইমাম ও খতিব মাওলানা শেখ ডেভিড মুনির।

অনুষ্ঠানে প্রধানবক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আল কোরআন একাডেমি লন্ডনের চেয়ারম্যান ড. হাফিজ মুনির উদ্দিন আহমেদ। বক্তব্যে তিনি বলেন, আল কোরআন একাডেমী এ পর্যন্ত বিভিন্ন ভাষায় অনুদিত প্রায় ৮ লক্ষাধিক কোরআন বিতরণ করেছ।

তারই ধারাবাহিকতায় আমরা আল কোরআন মেমোরাইজিং সেন্টার লিসবনের সঙ্গে যৌথভাবে ফ্রি কোরআন বিতরণে সামিল হয়েছি। ইউকে তে দীর্ঘ সময় বিভিন্ন শহরে আমরা ফ্রি কোরআন বিতরণ করে আসছি। সকলের সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে সারাবিশ্বে একাডেমী তার বিতরণ কার্যক্রম আরো ছড়িয়ে দিবে।

পবিত্র আল কোরআনের বাণী সবার হাতে হাতে পৌঁছে দিতে ফ্রি কোরআন বিতরণ, ইসলামিক সেমিনার আয়োজন ছাড়াও লিসবনে বেড়ে উঠা বাংলাদেশি শিশুদের জন্য ফ্রি কোরআন নুরানী ও হিফজ কোর্স পরিচালনা করছে প্রতিষ্ঠানটি। যেখানে ভিন্ন ভিন্ন সময় কোরআন শিখতে আসে শিশুরা।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ব্যাবসায়ী মো. কাজল আহমেদ, লিসবনের প্রবীণ কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব অলিউর রহমান চৌধুরী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে কোরআনুল কারীম থেকে তাৎপর্যপূর্ণ বক্তব্য রাখেন মাওলানা শেখ ডেভিড মুনির এবং তিনি দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন।

অনুষ্ঠানের বিরতির মাঝে মাঝে ইসলামী সংগীত পরিবেশন করেন লিসবন শিল্পীগোষ্ঠীর সদস্যদরা। অনুষ্ঠানে সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন সাজিদ মোহাম্মদ, কামরুল আলী, সফি উল্লাহ মাহমুদ, রাজীব আল মামুন, মোহাম্মদ আসাদ উল্লাহ প্রমুখ। আল কোরআন মেমোরাইজিং সেন্টার লিসবন ইন্টারন্যাশনাল কালচারাল অ্যাসোসিয়েশনের সহযোগী একটি প্রতিষ্ঠান। সুত্র: যুগান্তর