ভারতীয় সেনাবাহিনীর গোলায় ৪ বেসামরিক পাকিস্তানি নিহত; চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স তলব

পাকিস্তানের সেনাবাহিনী বলেছে, কাশ্মীর সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ রেখায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর গোলার আঘাতে চার বেসামরিক পাকিস্তানি নিহত হয়েছে। আজ (বৃহস্পতিবার) পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে কাতারভিত্তিক টিভি চ্যানেল আল জাজিরা এখবর জানিয়েছে।

পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল বাবর ইফতেখার বিবৃতিতে বলেছেন,নিয়ন্ত্রণ রেখার নিখিয়াল ও বাগসার এলাকার বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে এসব গোলা ছোড়া হয়।

তিনি আরও বলেন, নিখিয়াল ও বাগসার সেক্টরে বেসামরিক নাগরিকদের লক্ষ্য করে গোলা ছোড়ে ভারতীয় সেনাবাহিনী অস্ত্রবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে।

পাকিস্তান সেনাবাহিনী জানায়,সীমান্তের যে এলাকায় হামলা চালানো হয়েছে তা আবাসিক অঞ্চল। সেখানে বেসামরিক লোকজনের বসবাস। নিহতদের মধ্যে এক নারী রয়েছেন। এছাড়া আরও কয়েক জন আহত হয়েছেন।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর মুখপাত্র আরও জানিয়েছেন, ভারতীয় গোলা-গুলির জবাব দিতে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীও পাল্টা গুলি চালিয়েছে।

এদিকে, পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আজ ইসলামাবাদে নিযুক্ত ভারতের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স গৌরব আহলুওয়ালিকে ডেকে এনে প্রতিবাদ জানিয়েছে।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক মহাপরিচালক জাহিদ হাফিজ চৌধুরী ভারতের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্সকে বলেছেন, ভারতীয় বাহিনী নিরপরাধ মানুষকে হত্যার মাধ্যমে ২০০৩ সালের যুদ্ধবিরতি বিষয়ক সমঝোতা লঙ্ঘন করছে এবং মানবাধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক আইন ও রীতিনীতির প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন করেছে। সুত্র: পার্সটুডে

আমার ভাই কখনো অন্যায়কে মেনে নেননি, মুহাম্মাদ মুরসির স্মৃতিচারণায় এরদোগান

মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদ মুরসির ইন্তেকালের এক বছর পূর্তিতে তার রূহের মাগফিরাত কামনা করেছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়িব এরদোগান।

গতকাল বুধবার এক টুইটে এরদোগান মহান এই নেতার স্মরণে বলেন, আমি আজ আমার প্রিয় ভাই, মিসরের গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নির্বাচিত সর্বপ্রথম প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদ মুরসিকে গভীর শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করছি এবং প্রথম শাহাদাত বার্ষিকীতে তার রূহের মাগফিরাত কামনা করছি।

টুইটারে মুহাম্মাদ মুরসির সঙ্গে নিজের একটি ছবি শেয়ার করে মুসলিম বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় নেতা এরদোগান আরও বলেন, আমাদের উত্তরসূরীদের জানতে হবে যে, তাদের পূর্বসূরীরা এমন মহান ছিলেন যারা অন্যায়কে মেনে নেননি।

উল্লেখ্য, গতবছর ১৭ জুন মুহাম্মাদ মুরসি দেশটির একটি আদালতে বক্তব্য রাখার সময় অসুস্থ হয়ে মারা যান।

আল-জাজিরার খবরে বলা হয়, আদালতে শুনানির সময় মুরসি দীর্ঘ সময় বক্তব্য রাখছিলেন। প্রায় ২০ মিনিট বক্তব্য রাখার পর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন- এসময় মুরসিকে দ্রুত হাসপাতালে নেয়া হলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে মৃত ঘোষণা করে।

এর আগে ২০১৩ সালে এক বিক্ষোভের জের ধরে মুরসিকে ক্ষমতাচ্যুত করেন দেশটির সেনা প্রধান আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি এবং সিসি দেশের শাসনভার নিজের হাতে তুলে নেন। মুরসি ভক্তরা মনে করেন, আদালতে মুরসির ওপর সিসি প্রশাসনের শারীরিক মানসিক চাপ প্রয়োগই তার মৃত্যুর প্রধান কারণ। সূত্র: তুর্কি প্রেস