হিজাব পরায় পুদুচেরী বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাবর্তনে ঢুকতে বাধা, প্রতিবাদে স্বর্ণপদক প্রত্যাখ্যান করলেন মুসলিম ছাত্রী

একদিকে যখন পোশাক নিয়ে
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মন্তব্যে দেশজুড়ে বিতর্কের ঝড় বইছে,
ঠিক তখনই শিক্ষাক্ষেত্রেও পোশাক নিয়ে সমস্যায় পড়তে হয়।
এক পড়ুয়াকে। হিজাব পরে সমাবর্তনে যোগ দেওয়া যাবে না।

অনুষ্ঠানে ঢুকতে গেলে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয় পড়ুয়াকে বলা হয়, সমাবর্তনে যোগ দিতে হলে হিজাব খুলে আসতে হবে। ঘটনা পুদুচেরী বিশ্ববিদ্যালয়ের। জানা গিয়েছে, ওই
বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস কমিউনিকেশন স্নাতকোত্তর সর্বোচ্চ নম্বরের অধিকারী রাবির আব্দুর রহিম। তাই সমাবর্তনে তাঁর হাতে উঠে সোনার পদক।

বিশ্ববিদ্যালয় জওহরলাল নেহরু
অডিটরিয়ামে সমাবর্তন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে যেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে হাজির হয়েছিলেন রাষ্ট্রপতি
রামনাথ কোবিন্দ তার হাত থেকে হয়তো সাফল্যের পুরস্কার পেতেন রাহিবা কিন্তু সেই সময় অনুষ্ঠানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি
তাকে বলে অভিযোগ কারণ সেই হিজাব।

জানা যায় অনুষ্ঠান শুরুর আগেই তাঁকে বাইরে ডেকে নিয়ে যান এক পুলিশ কর্মী। রাবেয়া অভিযোগ, পুলিশের স্পেশাল সুপারিনটেনডেন্ট তাকে ডেকে বলেন “আপনার সঙ্গে কিছু কথা আছে৷ বাইরে আসুন। ছাত্রীর দাবি এরপর প্রায় ঘণ্টাখানেক হলের বাইরে দাঁড়িয়ে ছিলেন তিনি। তবে তার সঙ্গে আসেনি কোন পুলিশকর্মী। বাইরে থেকে কততম বেহা। বুঝতে পারেন রাষ্ট্রপতির বক্তৃতা শুরু হয়ে গিয়েছে৷

বলে অনুমান করেছিল পুলিশ। যদিও অন্য একটি সূত্রের দাবি। এদিন সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ঢোকার আগে রিয়াকে নাকি তার হিজাব খুলতে বলা হয়েছিল। রাজি না হওয়ায় অনুষ্ঠানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি ওই ছাত্রীকে।

যদিও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, রাবেয়ার সঙ্গে যে এমনটা হয়েছে সেটা তারা জানতেই পারেনি। রেজিস্ট্রার বি
চিত্রার কথায়, “আমরা জানি না কেন ওকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। যেখানে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আসার জন্য ওর নাম সিলেক্ট হয়েছে| সেখানে ওকে ঢুকতে না দেওয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না।

অনুষ্ঠান যখন প্রায় শেষের মুখে তখন আমিই ওকে দেখতে না পোস) খুঁজতে শুরু করি। রাবেহার সঙ্গে যা হয়েছে তা খুবই দুঃখ
গোটা ব্যাপারটা খতিয়ে দেখা হবে।