ট্রাম্পের মুসলিম বিদ্বেষী আইন বাতিল করছে যুক্তরাষ্ট্র

বিশ্বের মুসলিমপ্রধান রাষ্ট্রগুলোর ওপর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আরোপিত প্রবেশ নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে নতুন প্রস্তাব পাস করতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদ (হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভস)। বুধবারই (২২ জুলাই) এ সংক্রান্ত একটি বিল পাসের জন্য ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে, ‘নো ব্যান অ্যাক্ট’ নামের বিলটিতে হোয়াইট হাউস ও রিপাবলিকান নেতারা বিরোধিতা করলেও ডেমোক্রেট সংখ্যাগরিষ্ঠ প্রতিনিধি পরিষদে সেটি সহজেই পাস হয়ে যাবে।

বিলটির পক্ষে যু[ক্তি দিয়ে ‘মুসলিম অ্যাডভোকেটস’ গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক ফারহানা খেরা বলেন, মুসলিম নিষিদ্ধের কারণে আজ লাখ লাখ আমেরিকান তাদের পরিবার-পরিজন থেকে আলাদা রয়েছেন। বাবা-মায়েরা এক হতে পারছেন না, পরিবারগুলো এক হতে পারছে না।

নতুন এই বিলে যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন আইনে বৈষম্যবিরোধী ধারাগুলো আরও বিস্তৃত করা হচ্ছে। পাশাপাশি এর মাধ্যমে ভবিষ্যতে ধর্মীয় বিশ্বাসের ভিত্তিতে কারও প্রবেশ নিষিদ্ধে মার্কিন প্রেসিডেন্টের ক্ষমতাও সীমিত করা হচ্ছে।

বিশ্লেষকদের মতে, প্রতিনিধি পরিষদে বিলটি পাস হলে এর মাধ্যমে বেশিরভাগ মুসলিমপ্রধান দেশগুলোর ওপর দেওয়া ট্রাম্পের নিষেধাজ্ঞা বাতিল হতে পারে।

সম্প্রতি ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সিরিয়া ও ইয়েমেনের ওপর প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে বেআইনিভাবে ধর্মীয় বিশ্বাসের ভিত্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রবেশ নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার অভিযোগে সমালোচনার ঝড় ওঠে সবখানে।

আরও পড়ুন : চীনকে দেখিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বাণিজ্য করবে ভারত!

এর মধ্যেই নিষেধাজ্ঞার তালিকায় ভেনেজুয়েলা ও উত্তর কোরিয়ার নাম যোগ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। পরে এ তালিকায় যোগ হয় নাইজেরিয়া, সুদান, মিয়ানমারসহ আরও তিন দেশ, যাদের অধিকাংশই মুসলিমপ্রধান রাষ্ট্র।

সূত্র : আল-জাজিরা

আরও সংবাদ

ভারতে কোরবানি বন্ধের আবেদন হাইকোর্টে

ভারতে কোরবানি বন্ধের আবেদন হাইকোর্টে
আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানি বন্ধ করার জন্য মামলা করলেন অর্জুন সিং। আর কিছু দিন পরই ঈদ। ঠিক তার আগে এই মামলা দায়ের করলেন বিজেপি সাংসদ।

তবে ভারতে কোরবানির বিরুদ্ধে এটিই প্রথম কোনো মামলা নয়। এর আগেও দেশটির হাইকোর্টে এ ধরনের মামলা হয়েছিল।
প্রথম মামলাটি করা হয় ২০০৮ সালে। তখন আদালত নির্দেশ দেয়, পশুহত্যার নিয়ম মানতে হবে কোরবানি ঈদের সময়। কসাইখানায় পশুদের নিয়ে যাওয়ার আগে সেগুলোর সঠিক পরীক্ষা করতে হবে।

২০১৯ সালে আবারো এই মর্মে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়। মামলাকারীর অভিযোগ ছিল, পশুহত্যার নিয়ম কিছুই মানা হচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গে। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট রাজ্যকে সব নিয়ম মেনে চলার নির্দেশ দেয়।

এবার ঘটনাও অনেকটা তেমনই। আর মাত্র এক সপ্তাহ পরই কোরবানি ঈদ। তার আগে রাজ্য সরকার পশুহত্যা নিয়ে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে, তা জানতে চাওয়া হয়েছে অর্জুন সিংয়ের আইনজীবীর পক্ষ থেকে। দ্রুত শুনানির আবেদন জানিয়েছেন সাংসদের আইনজীবী।

এর আগে ভারতে মসজিদ থেকে মাইকে আযান দেওয়ার বিরোধিতা করে ভারতের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। সে অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবার পাল্টা মামলা করার হুমকিও দিয়েছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের শাখা সংগঠন মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ।