চিংড়িতে করোনা শনাক্ত, আমদানি নিষিদ্ধ করল চীন

আন্তর্চিংড়িতে করোনা শনাক্ত, আমদানি নিষিদ্ধ করল চীন
হিমায়িত চিংড়ির প্যাকেটে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ায় ইকুয়েডরের তিনটি কোম্পানির কাছ থেকে খাদ্য আমদানি নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে চীন। শুক্রবার ফরাসী বার্তাসংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

কিছুদিন আগে রাজধানী বেইজিংয়ে ফ্রিজে রাখা খাদ্য-সামগ্রীতে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর খাবারে ব্যাপক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করে চীন।

বিজ্ঞাপন

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে চীনের জেনারেল অ্যাডমিনিস্ট্রেশন অফ কাস্টমসের কর্মকর্তা বাই কেক্সিন বলেন, ডালিয়ান এবং জিয়ামিন বন্দর থেকে সংগৃহীত হোয়াইটলেগ চিংড়ির প্যাকেটের নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তবে প্যাকেটের ভেতরের নমুনা এবং চিংড়ি পরীক্ষায় নেগেটিভ রিপোর্ট এসেছে।

চীনা কাস্টমস কর্তৃপক্ষ বলছে, করোনাভাইরাস পজিটিভ শনাক্ত হওয়ায় ইকুয়েডরের তিনটি কোম্পানির কাছ থেকে খাদ্য-সামগ্রী আমদানি সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের সামুদ্রিত খাদ্য-সামগ্রীর বাজার থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হয়। তখন থেকে এই ভাইরাস বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এতে বিশ্বজুড়ে আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ২৪ লাখ ৪২ হাজার ৩৭ জন এবং মারা গেছেন ৫ লাখ ৫৮ হাজার ৫৪৪ জন।

এসআইএস/পিআর

করোনাভাইরাস চীন
বিজ্ঞাপন

পরবর্তী খবর
যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ে গলা ধরে এল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানের
আন্তর্জাতিক ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৯:২০ পিএম, ১০ জুলাই ২০২০
747
SHARES

যুক্তরাষ্ট্রের বিদায়ে গলা ধরে এল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধানের

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস মহামারির লড়াইয়ে ‘নেতৃত্বের অভাবে’র নিন্দা জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুস। একই সঙ্গে এই মহামারি মোকাবিলায় বৈশ্বিক ঐক্য গড়ে তোলার জন্য আবেগপ্রবণ এক আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

নভেল করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্তের ছয় মাস পর বিশ্বের বেশ কিছু দেশে সংক্রমণ বৃদ্ধি এবং বিস্তারের লাগাম টানার লড়াইয়ের মাঝে শুক্রবার ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন, আমার বন্ধুরা, কোনও ভুল করবেন না। আমরা এখন সবচেয়ে বড় যে হুমকির মুখোমুখি হয়েছি সেটি ভাইরাস নয়। বরং বৈশ্বিক এবং জাতীয় পর্যায়ে আমরা নেতৃত্ব ও সংহতির অভাবের মুখোমুখি হয়েছি।

বিজ্ঞাপন

করোনাভাইরাস মহামারির শুরু থেকেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ভাইরাসের উৎপত্তি ও বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ার ঘটনায় চীনকে দায়ী করেন মার্কিন এই প্রেসিডেন্ট। একই সঙ্গে এই মহামারির সময় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা চীনের পক্ষে কাজ করছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতি ট্রাম্পের এই ক্ষোভ থেমে থাকেনি এখানেই। গত ১৪ এপ্রিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বার্ষিক অনুদান বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। গত মঙ্গলবার বৈশ্বিক এই স্বাস্থ্য সংস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের সব ধরনের অর্থায়ন বন্ধ করছেন বলে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতিসংঘ ও মার্কিন কংগ্রেসকে জানান তিনি; যা আগামী বছরের জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

বিজ্ঞাপন

বৈশ্বিক এই স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক ছিন্নের ব্যাপারে কথা বলতে গিয়ে গলা ধরে আসে টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুসের। তিনি বলেন, এটি এক ধরনের ট্রাজেডি, যা আমাদের অনেক বন্ধু এবং অনেক জীবন হারাতে বাধ্য করছে। আমরা এই মহামারিকে বিভক্ত হয়ে হারাতে পারব না।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যেকদিন করোনা আক্রান্তের রেকর্ড হচ্ছে। দেশটিতে ৩০ লাখের বেশি মানুষ ইতোমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন। মারা গেছেন সোয়া লাখের বেশি। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা নিয়ন্ত্রণে আসার আগেই অর্থনীতির পুনরায় খুলে দেয়ার চেষ্টায় বিশৃঙ্খলা তৈরি হয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য প্রান্তেও সংক্রমণ ক্রমান্বয়ে বাড়ছে।

বিজ্ঞাপন

গত কয়েক মাস ধরে এই ভাইরাসটি নিয়ে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্য করে আসা ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জইর বলসোনারাও সংক্রমিত হয়েছেন। ভারতেও রেকর্ড সংক্রমণ হচ্ছে, মেক্সিকোতেও দ্রুত সংক্রমণের বিস্তার ঘটছে। করোনা মহামারির বিরুদ্ধে দ্রুত সফলতার দাবি করে আসা অস্ট্রেলিয়া দ্বিতীয় দফায় কিছু শহরে লকডাউনে যেতে বাধ্য হয়েছে।

আবেগপ্রবণ কণ্ঠে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বলেন, নির্বিচারে মানুষ হত্যাকারী সাধারণ এক শত্রুর বিরুদ্ধে মানবজাতির ঐক্যবদ্ধ হওয়া কি খুব কঠিন? আমরা কি সাধারণ শত্রুকে আলাদা অথবা চিহ্নিত করতে পারছি না? আমরা কি বুঝতে পারছি না যে, আমাদের মধ্যে বিভাজন এবং ফাটল কেবলমাত্র ভাইরাসের জন্যই সুবিধাজনক?

সূত্র: সিএনএন, ইভিনিং স্টান্ডার্ড।