ইসরাইলে হিজবুল্লাহ’র প্রতিশোধমূলক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা; প্রশংসা করল ইরান

ইহুদিবাদী ইসরাইলের বিরুদ্ধে লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর প্রতিশোধমূলক হা’মলার প্রশংসা করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা কর্মকর্তা। ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের-

সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি রোববার রাতে এক বক্তৃতায় এই প্রশংসা করে বলেন, ইমাম হোসেইন (আ.) কালজয়ী বিপ্লবের স্মৃতি বিজড়িত মহররমের প্রথম দিন এই প্রতিশোধমূলক হা’মলা ইমামের সেই মহাবিপ্লবী ভাষণ ‘হাইহাত মিন্নায যিল্লাহ’কে বিশ্ববাসীর কানে পৌঁছে দিয়েছে।

ইমাম হোসেইন (আ.) ৬১ হিজরির ১০ মহররম কারবালার ময়দানে পাপিষ্ঠ এজিদ বাহিনীর উদ্দেশে এই বিখ্যাতি উক্তি করেছিলেন যার অর্থ ‘আমার পক্ষে অপমান মেনে নেয়া অসম্ভব।’ আলী শামখানি রোববার রাতে আরো বলেন,

পারস্য উপসাগরীয় অঞ্চলে বর্তমানে আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের ‘শয়তানি অপতৎপরতার’ কেন্দ্রভূমিতে পরিণত হয়েছে। তিনি বলেন, ইরানের আকাশসীমা লঙ্ঘনকারী মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করা এবং

লেবাননে ইসরাইলি ড্রোন হামলার জবাবে হিজবুল্লাহর এই পাল্টা হামলা প্রমাণ করেছে, মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টিকারী আর কোনো অপকর্মকে বিনা জবাবে ছেড়ে দেয়া হবে না। ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব বলেন,

হিজবুল্লাহর প্রতি লেবাননের জনগণের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে এবং এই প্রতিরোধ সংগঠন লেবাননের সম্মান ও মর্যাদা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করছে।

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে সাম্প্রতিক ইসরাইলি ড্রোন হামলার জবাবে হিজবুল্লাহ গতকাল বিকেলে উত্তর ইসরাইলে একটি ইসরাইলি সামরিক যান লক্ষ্য করে হা’মলা চালায়।

হিজবুল্লাহ ঘোষণা করেছে, হা’মলায় ওই যানের সব আরোহী হ’তাহত হয়েছে। হিজবুল্লাহর মহাসচিব গত এক সপ্তাহে দুইবার এই প্রতিশোধমূলক হা’মলা চালানোর কথা আগেভাগে ঘোষণা করে রেখেছিলেন।

ইসরাইলের সামরিক ঘাঁটিতে হিজবুল্লাহ’র ক্ষেপণাস্ত্র হা’মলা: ইসরাইলি সেনা নি’হত

ইহুদিবাদি ইসরাইলের উত্তর সীমান্তের একটি সামরিক ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হা’মলা চালিয়েছে লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ। এতে ইসরাইলের একটি সামরিক যান ধ্বংস এবং এতে থাকা ইহুদিবাদি সেনারা হতাহত হয়েছে।

লেবাননের আল মায়াদিন টেলিভিশন চ্যানেল জানিয়েছে, আজ (রোববার) ইসরাইলের আভিভিম সামরিক ঘাঁটির সড়কে রাখা দুটি সামরিক যানকে লক্ষ্য করে হা’মলা চালায় হিজবুল্লাহ’র দুটি সশস্ত্র গ্রুপ।

এতে একটি সামরিক যান সম্পূর্ণ ধ্বংস হয় এবং অপরটিতে আগুন ধরে যায়। এসময় গাড়িতে থাকা ইসরাইলি সেনারা হতাহত হয়েছে। হামলার কথা নিশ্চিত করে ইসরাইলি সেনাবাহিনী জানিয়েছে,

লেবানন থেকে ইসরাইলি ঘাঁটি ও সামরিক যান লক্ষ্য করে অ্যান্টি ট্যাঙ্ক বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। এতে একটি সামরিক যান ধ্বংস হয়েছে। তবে কেউ হতাহত হয়েছে কি না, তা স্পষ্ট নয়।

ইসরাইলি সেনাবাহিনীর একজন মুখপাত্র জানান, লেবানন সীমান্ত থেকে ইসরাইলের চার কিলোমিটার ভেতরের এলাকার একটি গ্রামে ক্ষেপণাস্ত্র হা’মলা হয়েছে। হামলার কারণে স্থানীয় বাসিন্দাদের বাড়ির বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে।

এছাড়া ওই গ্রামের কাছে একটি উন্মুক্ত আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে বলেও জানিয়েছে ইসরাইলি সেনাবাহিনী। হিজবুল্লাহর সম্ভাব্য হা’মলার আশঙ্কায় সীমান্তে উচ্চ সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে ইসরাইলির সেনাবাহিনীকে।

এছাড়া, হিজবুল্লাহর সঙ্গে সাম্প্রতিক উত্তেজনার কারণে সামরিক বাহিনীর একটি প্রশিক্ষণও স্থগিত করেছে ইসরাইল। শনিবার রাতে এক টেলিভিশন ভাষণে হিজবুল্লাহ মহাসচিব হাসান নাসরুল্লাহ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন,

রাজধানী বৈরুতে সাম্প্রতিক ইসরাইলি ড্রোন হামলার জবাব দেয়ার যে সিদ্ধান্ত তার সংগঠন নিয়েছে তার কোনে নড়চড় হবে না। তিনি বলেছেন, গত সপ্তাহের ড্রোন হা’মলার জন্য ইসরাইলকে ‘মূল্য পরিশোধ করতে হবে’।

গত সপ্তাহে ইসরাইলি ড্রোন হা’মলার পর হিজবুল্লাহ নেতা তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় প্রতিশোধমূলক হা’মলা চালানোর হুমকি দিয়েছিলেন। এরপর লেবাননের শেবা কৃষি খামার সংলগ্ন সীমান্তে ইসরাইল সেনা সমাবেশ শক্তিশালী করেছে। সুত্র: পার্সটুডে