শত্রুর হুমকি-ধমকিতে ভীত নয় ইরান: জেনারেল বাকেরি!

ইরানের সশস্ত্র বাহিনী শত্রুদের ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছে এবং ক্ষেপণাস্ত্র ও প্রতিরক্ষা শক্তির বিরুদ্ধে শত্রুর হুমকিতে তেহরান ভীত নয়। এসব কথা বলেছেন ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরি।

বৃহস্পতিবার রাজধানী তেহরানে সমরাস্ত্র প্রদর্শনীতে বিদেশি রাষ্ট্রদূত ও সামরিক কর্মকর্তাদের এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ইরানের সশস্ত্র বাহিনী সব মিত্র দেশের সঙ্গে প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে সহযোগিতা বাড়াতে প্রস্তুত রয়েছে। সামরিক ক্ষেত্রে ইরানের নীতি ও কৌশল প্রতিরক্ষামূলক বলে তিনি ঘোষণা করেন।

জেনারেল বাকেরি বলেন, ইরান যে গোটা বিশ্বের শান্তি ও নিরাপত্তা এবং মধ্যপ্রাচ্যের জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় তা এখন সবার কাছেই স্পষ্ট।

ইরাক ও সিরিয়ায় সন্ত্রাসবিরোধী অভিযানে ইরানের সাফল্য তুলে ধরে মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরি বলেন, ইরাক ও সিরিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর পাশে থেকে জঙ্গি গোষ্ঠী দায়েশ বা আইএস-কে পরাজিত করেছে ইরানের সশস্ত্র বাহিনী।

সুত্র: পার্সটুডে

আরো পড়ুন: “ইরানের তেল যেতে না পারলে কারও তেলই যাবে না”

জেনারেল বাকেরি বলেছেন, বর্তমানে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো ইরানের জাহাজগুলোও হরমুজ প্রণালী অতিক্রম করছে, কিন্তু কেউ যদি এই প্রণালীকে অনিরাপদ করে তোলে তাহলে ইরান তার মোকাবেলা করবে।

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সশস্ত্র বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল মোহাম্মাদ বাকেরি বলেছেন, ইরানের তেল হরমুজ প্রণালী অতিক্রম করতে না পারলে অন্যদের তেলও ওই প্রণালী দিয়ে যেতে পারবে না।

তিনি রোববার ইরানের পুলিশ বাহিনীর কমান্ডার ও কর্মকর্তাদের এক সমাবেশের অবকাশে এ কথা বলেন। এর মাধ্যমে তিনি ইরানের তেল রপ্তানি বন্ধের মার্কিন পদক্ষেপের পরিণতির বিষয়ে হুঁশিয়ারি দিলেন।

তিনি বলেন, ইরান হরমুজ প্রণালী বন্ধ করতে চায় না। তবে শত্রুদের নানা পদক্ষেপের কারণে ইরান এ ক্ষেত্রে বাধ্য হতে পারে বলেও তিনি ইঙ্গিত দেন।

জেনারেল বাকেরি বলেন, মার্কিন জাহাজগুলো হরমুজ প্রণালীর বিষয়ে আইআরজিসি’র প্রশ্নের উত্তর দিতে বাধ্য। কারণ হরমুজ প্রণালীর নিরাপত্তার দায়িত্ব কার তা মার্কিনীরা জানে।

পাকিস্তানে অপহৃত দুই ইরানি সীমান্তরক্ষীর অবস্থা সম্পর্কে জেনারেল বাকেরি বলেছেন, অপহৃত দুই সীমান্তরক্ষী পাকিস্তানে সন্ত্রাসীদের কাছে আটক রয়েছে। তাদের মুক্ত করার বিষয়ে সর্বাত্মক চেষ্টা চলছে।

ইরান সফরে এসে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বিষয়টি সমাধানে চেষ্টা জোরদারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন বলে তিনি জানান।