জেনারেল সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেয়া হবেই: ইরানের সর্বোচ্চ নেতা

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেছেন, ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নেওয়া হবে। হত্যার নির্দেশদাতা ও এর সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা হবে।

আজ (বুধবার) শহীদ জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও আবু মাহদি আল মুহানদিসের পরিবারের সদস্যরা সর্বোচ্চ নেতার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন। সর্বোচ্চ নেতার সঙ্গে এই বৈঠকে কাসেম সোলাইমানির কয়েক জন সহযোদ্ধা এবং শাহাদাৎ বার্ষিকী উদযাপন কমিটির সদস্যরাও যোগ দিয়েছিলেন। শহীদ সোলাইমানির শাহাদাতের প্রথম বার্ষিকীকে সামনে রেখে এ বৈঠকের আয়োজন করা হয়।

সর্বোচ্চ নেতা আরও বলেন, কাসেম সোলাইমানি হচ্ছেন জাতীয় বীর, তিনি শুধু ইরান নয় গোটা মুসলিম উম্মাহর মহান বীর। আয়াতুল্লাহিল উজমা খামেনেয়ী বলেন, শহীদ সোলাইমানি ছিলেন সাহসী, প্রতিরোধী, বিজ্ঞ, আত্মত্যাগী এবং মানবপ্রেমী। তার মাঝে ছিল আধ্যাত্মিকতা ও আল্লাহর প্রতি আনুগত্য। কিন্তু তিনি কখনোই অন্যকে দেখানোর জন্য বা প্রদর্শনের জন্য কিছু করতেন না।

তিনি বলেন, জীবিত ও শহীদ উভয় অবস্থায় সোলাইমানি সাম্রাজ্যবাদীদের জন্য পরাজয় ডেকে এনেছে। ইরাক ও ইরানে শহীদ সোলাইমানি ও শহীদ মুহানদিসের শোকানুষ্ঠানে লাখ লাখ মানুষের উপস্থিতি সাম্রাজ্যবাদীদের নরম যুদ্ধের জেনারেলদেরকে হতভম্ব করে দিয়েছে।

সর্বোচ্চ নেতা বলেন, এটি ছিল আমেরিকার গালে চরম চপেটাঘাত। এরপর ইরাকে মার্কিন ঘাঁটি আইন আল আসাদে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার মাধ্যমে আরেকটি চপেটাঘাত করেছে ইরান। এর চেয়েও বড় চপেটাঘাত হচ্ছে সফটওয়্যারের মাধ্যমে সাম্রাজ্যবাদীদের ফাঁকা অহংকার চুরমার করে দেওয়া।

এ জন্য বিপ্লবী তরুণ সমাজ ও মুমিন প্রতিভাবানদের উদ্যোগ ও সাহসিকতা প্রয়োজন। এই শক্ত চপেটাঘাতের আরেকটি অংশ হলো এই অঞ্চল থেকে মার্কিনীদের বিতাড়িত করা। এ জন্য বিভিন্ন জাতির সাহসিকতা এবং প্রতিরোধমূলক নীতি প্রয়োজন। সূত্র: পার্সটুডে

স্বাধীন দেশে প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী আলতাফ হায়দার মারা গেছেন

স্বাধীনতার পর দেশে প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলতাফ হায়দার বার্ধক্যজনিত কারণে মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।

একে একে ৪৯ বছর পেরিয়ে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর ক্ষণেই মারা গেলেন এ বীর মুক্তিযোদ্ধা। মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০টায় পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার দেউলি গ্রামে নিজ বাড়িতে মারা যান তিনি। আলতাফ হায়দার স্ত্রী, ছয় মেয়ে ও দুই ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

বুধবার বাদ জোহর জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

১৯৭১ সালের ৮ ডিসেম্বর পটুয়াখালী শহরকে পাক হানাদার মুক্ত করে শহরের শহীদ আলাউদ্দিন শিশু পার্কে প্রথম জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেছিলেন আলতাফ হায়দার।

এদিকে, আজ বাঙালি জাতির শৌর্যবীর্য এবং বীরত্বের অবিস্মরণীয় দিন মহান বিজয় দিবস। শোষণ-বঞ্চনার অবসান ঘটাতে ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে স্বাধীনতার জন্য যে যুদ্ধ শুরু হয়েছিল, দীর্ঘ নয় মাস পর ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের মধ্য দিয়ে তার সফল পরিণতি পায়।

আজ সূর্যোদয়ের সাথে সাথে তোপধ্বনিতে শুরু হয় বিজয়ের উৎসব। চলতি বছরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে বিজয়ের এ উৎসব বড় পরিসরে উদযাপনের কথা থাকলেও বৈশ্বিক মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে তা হচ্ছে না।

সূত্র: ইউএনবি

ইসরাইল হচ্ছে একটি পথভ্রষ্ট রাষ্ট্র: সুদানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী

সুদানের শীর্ষ বিরোধী নেতা এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী সাদিক আল-মাহদী বলেছেন, ইসরাইল কোন স্বাভাবিক রাষ্ট্র নয়, এটি সম্পূর্ণ একটি পথভ্রষ্ট রাষ্ট্র।

সম্প্রতি সুদানের রাজধানী খার্তুমে অনুষ্ঠিত “জায়োনিস্ট শত্রুদের সাথে সাধারণীকরণের বিপদ” শীর্ষক এক সেমিনারে আল-মাহদী এসব কথা বলেন।

আল মাহদী বলেন, সাধারণীকরণ হলো আত্মসমর্পণের নরম নাম এবং শান্তির সাথে এ চুক্তির কোনও যোগসূত্র নেই।

সুদানের উম্মাহ পার্টির এই নেতা আরো বলেন, বর্তমান নর্মালাইজেশন প্রকল্পটি শান্তির সাথে কোনরুপ সম্পর্কযুক্ত নয়।

বরং এটি ইরানের সাথে আগত যুদ্ধের উপস্থাপনা। এটি আমেরিকান রাষ্ট্রপতি

এবং ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনে ট্রাম্প ও নেতানিয়াহুর বিজয়ী হওয়ার সম্ভাবনাকে উন্নত করেছে।

সুদানের প্রাক্তন এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের অবস্থান সুস্পষ্টভাবে সাধারণীকরণের বিরুদ্ধে এবং আরব সংহতি,

মুসলিম সংহতি ও ন্যায়বিচারের নীতি দ্বারা নির্ধারিত যা বর্ণবাদী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে নিষেধ করে। সূত্র: ইমান২৪