এবার আমেরিকা-ভিত্তিক সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর নেতাকে আটক করল ইরান

আমেরিকা-ভিত্তিক ইরানবিরোধী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ‘তোন্দার’-এর প্রধান জামশিদ শরমাহ্‌দকে আটক করেছে তেহরান। ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয় শনিবার শেষ বেলায় এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “আমেরিকায় বসে ইরানে সশস্ত্র ও নাশকতামূলক অভিযান পরিচালনাকারী সন্ত্রাসী গোষ্ঠী তোন্দার-এর প্রধান জামশিদ শরমাহদকে ইরানের নিরাপত্তা বাহিনী এক জটিল অভিযান চালিয়ে আটক করেছে।”

শরমাহ্‌দ ২০০৮ সালে ইরানের মধ্যাঞ্চলীয় ফার্স প্রদেশের প্রধান শহর শিরাজের সাইয়্যেদুশ শোহাদা হোসেইনিয়ায় বোমা হামলার পরিকল্পনা ও তা বাস্তবায়ন করে। ওই সন্ত্রাসী হামলায় ১৪ জন নিহত ও ২১৫ জন আহত হন।

জামশিদ শরমাহ্‌দ (আটকের পরের ছবি)
এ ছাড়া, গত কয়েক বছরে এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠী ইরানে বহু সন্ত্রাসী হামলা চালানোর পরিকল্পনা করে যেগুলো ইরানের নিরাপত্তা বাহিনীর সতর্কতার কারণে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়নি।

এসব পরিকল্পনার মধ্যে ছিল শিরাজের ‘সেইভান্দ’ বাধ উড়িয়ে দেয়া, তেহরানের বইমেলায় সায়ানাইড বোমা হামলা এবং ইমাম খোমেনী (রহ.)-এর মাজারে বোমা বিস্ফোরণ।

ইরানের গোয়েন্দা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমেরিকা-ভিত্তিক এই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর নেতাকে আটক করা সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য পরে সর্বসাধারণকে জানানো হবে।

সুত্র: পার্সটুডে

আমেরিকার বিরুদ্ধে মহড়া; নয়া বোমারু বিমান প্রদর্শন করল চীন

চীনের সেনাবাহিনী যেকোনো প্রতিকূল আবহাওয়ায় সব ধরনের অভিযান পরিচালনায় সক্ষম একটি কৌশলগত বোমারু বিমান প্রথমবারের মতো প্রদর্শন করেছে।

দক্ষিণ চীন সাগর নিয়ে আমেরিকার সঙ্গে চীনের চলমান মতবিরোধ ও ওই অঞ্চলে আমেরিকার যুদ্ধজাহাজ পাঠানোর কারণে পরিস্থিতি যখন উত্তপ্ত তখন এই বিমানটি উদ্বোধন করল বেইজিং।বিমানটির প্রথম প্রদর্শনী উপলক্ষে একটি মহড়ারও আয়োজন করে চীন।

চীনের নয়া এ বোমারু বিমানটির নাম এইচ-সিক্সজে।এটি একসঙ্গে সাতটি জাহাজ-বিধ্বংসী ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ‘ওয়াইজে-১২’ বহন করতে পারে। অত্যন্ত নিখুঁতভাবে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম এসব ক্ষপণাস্ত্র।

মার্কিন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চীনা এই বোমারু বিমানটি আকাশে অন্য বিমান থেকে জ্বালানী সংগ্রহ করতে পারে। তবে নিরাপত্তার কারণে এ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানায়নি বেইজিং। সূত্র: পার্সটুডে

মার্কিন গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করল ইয়েমেন

‘আরকিউ-২০’ মডেলের একটি মার্কিন গোয়েন্দা ড্রোন ভূপাতিত করেছে ইয়েমেনের সামরিক বাহিনী। সৌদি আরবের সীমান্তবর্তী হারাদ জেলার আকাশে গোয়েন্দাবৃত্তি করার সময় ড্রোনটিতে আঘাত হানা হয়।

ইয়েমেনের সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারি বলেছেন, তাদের বিমান প্রতিরক্ষা বাহিনী একটি মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করেছে। কয়েক দিন আগেও ইয়েমেনের সা’দা প্রদেশে সেনাবাহিনী ও গণবাহিনীর বিমান প্রতিরক্ষা ইউনিটের গুলির আঘাতে সৌদি আরবের একটি ড্রোন ভূপাতিত হয়েছে।

ইয়েমেনের হুথি আনসারুল্লাহ সমর্থিত সশস্ত্র বাহিনী মাঝে মধ্যেই শত্রুর এ ধরণের ড্রোন ভূপাতিত করে থাকে। ইয়েমেনের ক্ষমতায় নিজের অনুগত সরকার বসাতে ২০১৫ সালের মার্চ থেকে সেদেশে আগ্রাসন চালিয়ে আসছে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ কয়েকটি দেশ।

তাদের আগ্রাসনে এ পর্যন্ত ইয়েমেনে ১৬ হাজারের বেশি মানুষ নিহত, হাজার হাজার আহত এবং লাখ লাখ মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছেন। সূত্র: পার্সটুডে