‘পশ্চিম এশিয়ায় আইএস-কে পরিচালনা করছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইল’

আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইসমাইল কায়ানি বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইহুদিবাদী ইসরাইল হচ্ছে সন্ত্রাসী গোষ্ঠী দায়েশ বা আইএসের সহযোগী। এটা নিশ্চিতভাবে বলা যায়, তাদের ষড়যন্ত্র এখনো শেষ হয়নি।

কয়েক দিন আগে সিরিয়ার বুকামালে আইএস জঙ্গিদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের সর্বশেষ পরিস্থিতি সরেজমিনে পরিদর্শনের সময় তিনি এ কথা বলেন। তার এ বক্তব্য আজ ইরানের আল-আলম টিভি চ্যানেল সম্প্রচার করেছে।

ইসমাইল কায়ানি আরও বলেছেন, পশ্চিম এশিয়ার দেশগুলোতে দায়েশ বা আইএসের তৎপরতা চলছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের দিকনির্দেশনায়। তিনি আরও বলেছেন, মার্কিন-ইসরাইলি ষড়যন্ত্র অব্যাহত রয়েছে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মানবতাবিরোধী তৎপরতা সম্পর্কে তিনি আরও বলেন, যে মার্কিন প্রশাসন তার নিজ দেশের মানুষের সঙ্গে হিংস্রতা দেখায়, নৃশংস কায়দায় জনগণকে দমন করে। তারা স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বের অন্য জাতিগুলোর সঙ্গে অন্যায় আচরণ করবে।

কুদস ফোর্সের প্রধান বলেন, আমরা শহীদদের পথ বিশেষকরে শহীদ কাসেম সুলাইমানির পথ অনুসরণ অব্যাহত রাখব। সুত্র: পার্সটুডে

যুক্তরাষ্ট্র নিজেই ‘সন্ত্রাসী গোষ্ঠী’ আইএসের পৃষ্ঠপোষক: পাকিস্তান

সম্প্রতি পাকিস্তানকে সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য বলে আখ্যায়িত করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

মার্কিন সরকারের এমন মন্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে পাকিস্তান। জবাবে পাকিস্তান বলছে, যুক্তরাষ্ট্র নিজেই ‘সন্ত্রাসী গোষ্ঠী’ আইএসের (ইসলামিক স্টেট) পৃষ্ঠপোষক।

আমেরিকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক প্রতিবেদন প্রকাশ করে দাবি করে যে, পাকিস্তান উগ্র সন্ত্রাসীদের জন্য অভয়ারণ্য। পাকিস্তানের উগ্র জঙ্গিরা দেশটি থেকে ভারত ও আফগানিস্তানে সন্ত্রাসী হামলা চালাচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন প্রতিবেদনের সমালোচনা করে প্রতিবাদ জানিয়েছে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বৃহস্পতিবার বিকালে পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ সম্পর্কিত এক বিবৃতিতে জানায়, সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধে দেশটির ভূমিকাকে উপেক্ষায় করায় দুঃখ প্রকাশ করছে তারা।

পাকিস্তানের দেয়া ওই বিবৃতিতে আরো বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানকে এমন সময় সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য বলেছে যখন খোদ মার্কিন সরকার উগ্র সন্ত্রাসী গোষ্ঠী আইএসের পৃষ্ঠপোষকতা করছে। অন্যদিকে ইসলামাবাদ নিজেই সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর হামলার শিকার হচ্ছে।

পাকিস্তানের দাবি, সন্ত্রাসবাদের মূলোৎপাটন না করা পর্যন্ত জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে যাবে ইসলামাবাদ।

পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আয়েশা ফারুকি জানিয়েছিলেন, তার দেশ বিগত তিন বছরের অভিযানে অন্তত ১ হাজার সন্ত্রাসীকে হত্যা ও বন্দি করেছে। পাকিস্তান তিন বছর আগে দেশটির সর্বত্র সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কড়া অভিযান শুরু করে যার সমাপ্তি এখনও ঘোষণা করা হয়নি। ইরনা।