ইসরাইলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের হাতে অস্ত্র তুলে নেয়ার আহ্বান খোমেনির

ইসরাইলের বিরুদ্ধে ফিলিস্তিনি জনগণকে অস্ত্র হাতে তুলে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনি। মঙ্গলবার সকালে এক টুইট বার্তায় খোমেনি এই আহ্বান জানান।

টুইট বার্তায় খোমেনি বলেন, গাজার মত পশ্চিম তীরেও জনগণকে অস্ত্র হাতে তুলে নিতে হবে। আর এর মাধ্যমেই ফিলিস্তিনি জনগণের কষ্ট দূর হতে পারে। ওই টুইটে ইসরাইলিদের শয়তান এবং নেকড়ে বলেও আখ্যায়িত করেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খোমেনি।

গত রবিবার ইসরাইল নতুন ঐক্যের সরকার শপথ নিয়েছে। সাবেক প্রতিদ্বন্দ্বী বেন্নি গ্যান্টজকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর নেতৃত্বের পার্লামেন্টে এ শপথ অনুষ্ঠিত হয়। নতুন সরকারে শপথ নিয়েই ফিলিস্তিনে অবৈধ ইহুদি বসতি সম্প্রসারণ এবং সেখানে ইসরায়েলি সার্বভৌম ক্ষমতার অঙ্গীকার করেছেন নেতানিয়াহু। সুত্র: পার্সটুডে

আরব আমিরাতের চিকিৎসা সহায়তা ফিরিয়ে দিল ফিলিস্তিন!

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পাঠানো চিকিৎসা সহায়তা ফিরিয়ে দিয়েছে ফিলিস্তিন। এক বিবৃতিতে ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। মেডিক্যাল সহায়তা পাঠানোর ব্যাপারে আমিরাত ফিলিস্তিনের সাথে সমন্বয় না করায় তারা সহায়তাটি প্রত্যাখ্যান করেছে বলে জানিয়েছে দেশটি।

এক সংবাদ সম্মেলনে বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী মাই খাইলা বলেছেন, আমিরাতের পাঠানো মেডিক্যাল সহায়তা তার দেশ প্রত্যাখ্যান করেছে। কারণ আরব আমিরাত সরাসরি আমাদের সঙ্গে মেডিক্যাল সহায়তার বিষয়ে যোগাযোগ করেনি।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র। আমাদের সঙ্গেই তাদের প্রথম যোগাযোগ করা প্রয়োজন ছিল। বৃহস্পতিবার ফিলিস্তিনের সংবাদ সংস্থা ম্যানের বরাত দিয়ে জানা যায়, ইসরাইলের তেলআবিবের বেন গুরিয়ান বিমানবন্দরে সহায়তা পৌঁছানোর পরে ফিলিস্তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গত মঙ্গলবার আমিরাতের রাজধানী আবু ধাবি থেকে ইত্তিহাদ এয়ারলাইন্সের একটি বিমান ফিলিস্তিনিদের জন্য করোনার সহায়তা ইসরাইলে পাঠানো হয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের ইসরাইলের মধ্যে সরকারি সূত্র না থাকে সত্ত্বেও দুই দেশের মধ্যে এটি প্রথম সরকারি ফ্লাইট হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে। উল্লেখ্য, ওয়ার্ল্ডোমিটারসের তথ্য অনুযায়ী, ফিলিস্তিনে এখন পর্যন্ত ৪২৩ জন করোনায় আক্রান্ত ও দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

সূত্র: আল জাজিরা

স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী!

মহামারি করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের আশঙ্কায় আগামী দুই সপ্তাহের জন্য স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী তান সেরি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন।

স্থানীয় সময় শুক্রবার (২২ মে) পারদানা পুত্রায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জাতীয় অর্থ কাউন্সিলের সভা শেষে প্রধানমন্ত্রী তান সেরি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন কোয়ারেন্টাইনে যাওয়ার এ ঘোষণা দেন।

তিনি জানান, গত মঙ্গলবার পুত্রাজায়ায় মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে অংশ নেয়া একজন কর্মকর্তার কোভিড-১৯ এর স্বাস্থ্যপরীক্ষা পজিটিভ আসার ফলে স্বাভাবিকভাবেই তার আক্রান্ত হওয়ার শঙ্কায় ছিলেন।

এজন্য শুক্রবার রাত থেকে আগামী দুই সপ্তাহের জন্য স্বেচ্ছায় হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। এছাড়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, ওইদিন সভায় যারা অংশ নিয়েছেন তাদেরও কোভিড -১৯ এর পরীক্ষা করে ১৪ দিনের জন্য নিজ নিজ বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনে যাওয়া নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী।