মোদির কাছে কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ব্যাখ্যা চাইলো মার্কিন আদালত

আমেরিকার একটি আদালত ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যকে ভারতের সঙ্গে একীভূত করে নেয়ার কারণ এবং সেখানে ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের ব্যাখ্যা চেয়েছে।

আদালত বলেছে আগামী ২১ দিনের মধ্যে নরেন্দ্র মোদিকে এই অভিযোগের ব্যাখ্যা দিতে হবে। কাশ্মীর খালিস্তান রেফারেন্ডাম ফ্রন্ট অভিযোগ দায়ের করলে টেক্সাসের হিউস্টোন জেলা আদালতের পক্ষ থেকে এ উদ্যোগ নেয়া হলো।

আগামী ২২ সেপ্টেম্বর টেক্সাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির একটি যৌথ সমাবেশে বক্তব্য রাখার কথা রয়েছে। বলা হচ্ছে- কাশ্মীরে নারী, শিশু ও বৃদ্ধরাও নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে না

খালিস্তান ফ্রন্ট তাদের অভিযোগে বলেছে যে, নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন সরকার গত ৫ আগস্ট কাশ্মীর দখল করে নিয়েছে এবং আন্তর্জাতিক সমস্ত আইন লঙ্ঘন করেছে। খালিস্তান ফ্রন্টের অভিযোগে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং

বিজেপি নেতা কানওয়াল জিৎ সিং-কেও এই অবৈধ দখলদারিত্ব ও ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ী করা হয়েছে। ৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করার পর ভারত সরকার সেখানে নজিরবিহীন দীর্ঘমেয়াদী কারফিউ জারি করে রেখেছে।

এছাড়া, সব ধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন, নাগরিকদের মৌলিক অধিকার দিতে অস্বীকৃতি, জোর করে অবৈধভাবে কাশ্মীরের বহু নাগরিককে আটক, তাদের উপরে ব্যাপক নির্যাতন এবং বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

কোরান মুখস্ত করার সময় আগুনে পুড়ে মরলো মাদ্রাসার ২৭ শিশু

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ লাইবেরিয়ার একটি মাদ্রাসায় আগুন লেগে অন্তত ২৭ জন শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে রাজধানী মোনরোভিয়ার নিকটবর্তী পেইন্সভেল সিটির মাদ্রাসাটিতে আগুন লাগে বলে দেশটির প্রেসিডেন্ট জর্জ উইয়ার টুইটের বরাতে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মাদ্রাসাটির শিশু শিক্ষার্থীরা ‘কোরআন মুখস্ত করার সময়’ আগুনের সূত্রপাত ঘটে বলে বুধবার জানিয়েছেন পুলিশের মুখপাত্র মোজেস কার্টার। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয় এবং এ বিষয়ে আরও তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

কার্টার প্রথমে ৩০ জন শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন, পরে সংশোধন করে ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেন। দগ্ধ আরও দুই জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। টুইটে প্রেসিডেন্ট উইয়া লেখেন,

‘গতরাতে পেইন্সভেল সিটিতে যে শিশুরা মারা গেছে আমার প্রার্থনা তাদের পরিবারের জন্য। ওই পরিবারগুলো ও পুরো লাইবেরিয়ার জন্য এটি একটি কঠিন সময়।’ লাইবেরিয়ার বড় শহরগুলোতে বৈদ্যুতিক সংযোগের ত্রুটিজনিত কারণে প্রায়ই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

এসব অগ্নিকাণ্ডে ভবন ধসে পড়ার মতো ঘটনাও ঘটলেও এত মৃত্যুর ঘটনা বিরল। এসব অগ্নিকাণ্ডে ভবন ধসে পড়ার মতো ঘটনাও ঘটলেও এত মৃত্যুর ঘটনা বিরল। এসব অগ্নিকাণ্ডে ভবন ধসে পড়ার মতো ঘটনাও ঘটলেও এত মৃত্যুর ঘটনা বিরল।