চীনের সাথে যুদ্ধে টানা ১৫ দিন টিকে থাকার প্রস্তুতি নিচ্ছে ভারত

চীন এবং পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ লাগলে টানা ১৫ দিন যাতে লড়াই করা যায় সেই ধরনের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে ভারত। অস্ত্রশস্ত্র ও গোলাবারুদসহ যাবতীয় সমরাস্ত্রের ভাণ্ডার আরো মজবুত করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে দেশটি। সরকারি একটি সূত্র এমন দাবি করেছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার

ভারতের বাহিনীগুলোকে আরো শক্তিশালী করতে দেশীয় এবং বিদেশি সূত্র থেকে যাতে প্রচুর সমরাস্ত্র পাওয়া যায় তার জন্য ৫০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করা হতে পারে বলে সূত্রের খবর। ঐ সূত্রের দাবি, সমরাস্ত্রের সম্ভার বাড়ানোর জন্য আগেই বাহিনীকে সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছিল।

যেভাবে সীমান্তে উত্তেজনা বাড়ছে তাতে সম্ভাব্য পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই অস্ত্র সম্ভার বাড়ানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে। ঐ সূত্র আরো দাবি করেছে, টানা ৪০ দিন যুদ্ধ করার মতো অস্ত্র এবং গোলাবারুদ মজুত ছিল বাহিনীর কাছে।

সেটা কমতে কমতে ১০ দিন যুদ্ধ সামাল দেওয়ার মতো অবস্থায় এসে দাঁড়ায়। তাছাড়া যুদ্ধের ধরন পরিবর্তন হয়েছে, অস্ত্রের জোগানে টান পড়ায় এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

কাশ্মীরের উরিতে হামলার পরই দেখা যায় যে, দেশের অস্ত্র ভাণ্ডারে একটা বিশাল পরিমাণ ঘাটতি রয়েছে। তৎকালীন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পর্রীকর তিন বাহিনীর অস্ত্র বাড়াতে আরো বরাদ্দ দেন।

অস্ত্র কেনার জন্য তিন বাহিনীকে বিশেষ ক্ষমতা দেওয়া হয়। তার পর থেকেই অস্ত্রসম্ভার বাড়ানোর লক্ষ্যে কাজ শুরু করে দেয় বাহিনী। এই মুহূর্তে চীনের সঙ্গে সীমান্ত দিয়ে একটা টানাপড়েন চলছে।

পরিস্থিতি যথেষ্টই উত্তপ্ত। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমন একটা উত্তপ্ত আবহ যদি কোনোভাবে যুদ্ধের দিকে মোড় নেয় তাহলে তা প্রতিরোধ করা এবং সমুচিত জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে ভারতকে।

সেই পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে অস্ত্র সম্ভারকে আরো মজবুত করার এই সিদ্ধান্ত যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।