মুসলমানদের সুখবর দিলেন জো বাইডেন

মুসলমানদের সুখবর দিলেন জো বাইডেন
জো বাইডেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তিনি প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলে মুসলমানদের যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে ডোনাল্ড ট্রাম্পের আরোপিত তথাকথিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করবেন। মুসলিম পলিটিক্যাল অ্যাকশন কমিটি এমগেজ আয়োজিত সমাবেশে নভেম্বরের মার্কিন নির্বাচনে মুসলিম আমেরিকান ভয়েস ম্যাটর বলেও স্লোগান দেন তিনি।

বাইডেন বলেন, মুসলমান সম্প্রদায়ের প্রথমে অনুধাবন করতে হবে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্যাতন, যা দেশটিতে থাকা কালো ও বাদামী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে চালানো হয়েছে। ট্রাম্প চার বছর ধরে আমেরিকার মুসলমান সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে অব্যাহত চাপ ও তাদের অসম্মান করছেন।
২০১৭ সালে ট্রাম্প প্রথমেই ইরান, ইরাক, লিবিয়া, সোমালিয়া, সুদান, সিরিয়া এবং ইয়েমেনের মুসলমানদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে নির্বাহী আদেশ জারি করেন।

বাইডেন বলেন, ট্রাম্প তার কথাবার্তা, নীতি নৈতিকতা এবং কাজকর্মের মাধ্যমে দেশে ঘৃণার আগুন ছড়িয়ে দিয়েছেন।
২০১৮ সালে বিভিন্ন আইনী পদক্ষেপের পরও অভিবাসী নিয়ন্ত্রণে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের পক্ষেই রায় দেন মার্কিন সুপ্রিম কোর্ট।

ভাষণে, মুসলিমবিরোধী ট্রাম্পের ঘৃণাবাদের তীব্র সমালোচনা করে বাইডেন বলেন, যারা তার কাজের সমালোচনা করেছে তাদের তিনি আক্রমণ করেছেন। আমাদের কিছু করতে হবে এ বিষয়ে। সরকারের শাখাপ্রশাখায় থাকা ট্রাম্পের ছড়ানো ঘৃণাবাদ নির্মূলে সবাইকে একত্রিত হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।
রিয়েল ক্লিয়ার পলিটিক্সের জরিপ অনুযায়ী ট্রাম্প থেকে জনপ্রিয়তায় ৮ দশমিক ৬ শতাংশ এগিয়ে আছেন বাইডেন।

২০১৭ সালের পিউ রিসার্চের জরিপ জানায়, দুই তৃতীয়াংশ মুসলিম ডেমোক্রেটকে সমর্থন করে।
সমাবেশে বাইডেনের ভাষণকে ঐতিহাসিক মুহূর্ত আখ্যা দিয়েছেন এমগেজের সহপ্রতিষ্ঠাতা খুররাম ওয়াহিদ। তিনি বলেন, বাইডেনের বক্তব্য প্রমাণ করে তিনি মুসলমানদের মূল্যবোধকে সম্মান করেন। তাকে সহানুভূতিশীল মানুষ বলেও আখ্যা দেন খুররাম।

আরও সংবাদ

ভয়ংকর লেজার ক্ষেপণাস্ত্রের উদ্বোধন করলো ইরান

ভয়ংকর লেজার ক্ষেপণাস্ত্রের উদ্বোধন করলো ইরান
অত্যাধুনিক লেজার গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্রের উদ্বোধন করেছে ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী (আইআরজিসি)। সোমবার (২০ জুলাই) আইআরজিসি’র প্রধান মেজর জেনারেল হোসেইন সালামির উপস্থিতিতে এর উদ্বোধন করা হয়।

ইরানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা ইরনা জানিয়েছে, এদিন সকালে জেনারেল সালামি আইআরজিসি’র হেলিকপ্টার পরিচালনা বিষয়ক ঘাঁটি ‘ফাতহ’ পরিদর্শনে যান। সেখানে সামরিক বাহিনীর বিভিন্ন সফলতা পরিদর্শনের পাশাপাশি লেজার গাইডেড ক্ষেপণাস্ত্র উন্মোচন করেন তিনি।

বিপ্লবী গার্ডের প্রধান বলেন, আইআরজিসি’র পদাতিক ইউনিটের অধীনে পরিচালিত হেলিকপ্টার বিভাগ নানা ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে। বিশেষকরে তারা এখন হেলিকপ্টারে যন্ত্রাংশ তৈরি এবং হেলিকপ্টার আধুনিকায়নে স্বনির্ভর।

হেলিকপ্টারের যন্ত্রাংশ ও হেলিকপ্টার আধুনিকায়নের সব কিছুই ইরানি বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে হচ্ছে বলে জানান তিনি।