বিয়ের অনুষ্ঠানে হামলায় ২৫ জন নিহত

ছবি: সেীদি হামলায় ধ্বংস্তুপে পরিণত ইয়েমেনের একটি বিয়ে বাড়ি।

ইয়েমেনের আল-জাউফ এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে সৌদি জোটের বোমা হামলায় অন্তত ২৫ জন নারী ও শিশু হতাহত হয়েছে। ইরান এই হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানিয়ে বলেছে, আন্তর্জাতিক সমাজের নীরবতার সুযোগে সৌদি আররের নেতৃত্বে ইয়েমেনে যুদ্ধাপরাধ চলছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সাইয়্যেদ আব্বাস মুসাভি ইয়েমেনিদের জীবন রক্ষায় এগিয়ে আসতে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
তিনি বলেন, যেসব দেশ ঘাতকদের হাতে ধ্বংসাত্মক অস্ত্র ও বোমা তুলে দিচ্ছে তারাও এসব হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী।

আব্বাস মুসাভি আরও বলেছেন, সৌদি জোট ইয়েমেনে নির্বিচারে শিশু হত্যা অব্যাহত রাখলেও রাজনৈতিক চাপ ও অর্থের কাছে নতিস্বীকার করেছে জাতিসংঘ। তারা শিশু ঘাতক দেশগুলোর তালিকা থেকে সৌদি আরবের নাম বাদ দিয়েছে।

২০১৫ সালের মার্চ থেকে ইয়েমেনে আগ্রাসন চালিয়ে আসছে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতসহ কয়েকটি দেশ। আর এসব দেশকে মারণাস্ত্র ও গোয়েন্দা তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ।
সূত্র: রেডিও তেহরান

আরও সংবাদ

করোনার ভুয়া সনদ বিক্রির বিশাল ব্যবসা বাংলাদেশে: নিউইয়র্ক টাইমস

ইতালির পর যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমের শিরোনাম হয়েছে বাংলাদেশে করোনার ভুয়া সনদ বিক্রির সংবাদ। সংবাদমাধ্যমটি এ ঘটনাকে সনদ বিক্রির বিশাল ব্যবসা বলে আখ্যা দিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) প্রকাশিত জেফেরি জেটলিম্যান এবং সামির ইয়াসিরের করা ওই প্রতিবেদনের শিরোনাম করা হয়েছে ‘বিগ বিজনেস ইন বাংলাদেশ: সেলিং ফেক করোনাভাইরাস সার্টিফিকেটস’।

ওই প্রতিবেদনে করোনার সার্টিফিকেট নিয়ে মোহাম্মদ শাহেদের প্রতারণার বিশদ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে। পাঁচ হাজার টাকায় তার সার্টিফিকেট বিক্রির বিষয়টিও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। বাদ পড়েনি বোরকা পরে তার ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা এবং ধরা পড়ার বিষয়টিও।

দেশে প্রবাসীদের গুরুত্বের বিষয়টি তুলে ধরে তাদের করোনার সার্টিফিকেটের প্রয়োজনীয়তার কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। ইতালির ফেরত পাঠানো প্রবাসী এবং ফ্লাইট বাদ পড়ার বিষয়টিও বাদ পড়েনি প্রতিবেদনে।