আয়াসোফিয়ার ব্যাপারে তুরস্কের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে জামায়াতে ইসলাম পাকিস্তান

তুরস্কের শীর্ষ আদালতের রায়ের মাধ্যমে ঐতিহাসিক আয়াসোফিয়াকে জাদুঘর থেকে পুনরায় মসজিদে রূপান্তরের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে পাকিস্তানের ইসলামি রাজনৈতিক দল জামায়াতে ইসলাম পাকিস্তান।

গত মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) তুরস্কের সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগানকে একটি চিঠিতে শুভেচ্ছা বার্তা জানিয়েছে দলটির প্রধান সিরাজুল হক।

এরদোগানকে প্রেরিত ওই চিঠিতে তিনি বলেন, ৮৬ বছর পর মুসলিমদের ইবাদাতের জন্য আয়াসোফিয়াকে মসজিদ হিসেবে উন্মুক্ত করে দেওয়ার সংবাদ সারা বিশ্বের মুসলমানদের,বিশেষত পাকিস্তানের মুসলমানদের হৃদয়ে উষ্ণ অনুভূতির সৃষ্টি করেছে।

বেশ কয়েক দশক আগের বিতর্কিত ও অন্যায্য সিদ্ধান্তকে পরিবর্তন করার বড় ও সাহসী সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আমাদের অন্তরের অন্তস্থল থেকে জানানো শুভেচ্ছা আপনি গ্রহণ করুন।

বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের অধীনে কয়েক শতাব্দী যাবত চার্চ হিসেবে ব্যবহৃত হওয়ার পর ১৪৫৩ সালে সুলতান মুহাম্মাদ আল-ফাতিহ কনস্টান্টিনোপল বিজয় করে নিজ অর্থে ক্রয় করে আয়াসোফিয়াকে মসজিদে রূপান্তর করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে ১৯৩৪ সালের এক বিতর্কিত সিদ্ধান্তে আয়াসোফিয়া মসজিদকে জাদুঘরে রূপান্তর করা হয়।

১৯৯২ সালে অযোধ্যায় হিন্দু সন্ত্রাসীদের হাতে শহীদ হওয়া বাবরি মসজিদের ব্যাপারে গেল বছরের ভারতের শীর্ষ আদালতের রায়ের প্রতি ইঙ্গিত করে সিরাজুল হক বলেন, মুসলিম প্রধান রাষ্ট্র তুরস্কের সরকার যেখানে মুসলিম-অমুসলিম সকলের অধিকার সমুন্নত রেখে নিজেদের ঐতিহাসিক স্থাপনাকে রক্ষায় নেতৃত্ব দিচ্ছে ঠিক তার বিপরীতে পাকিস্তানের প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারত সরকার হিন্দুদের হাতে ধ্বংস হওয়া বাবরি মসজিদের জায়গায় মন্দির নির্মাণের প্রস্তুতি নিচ্ছে। ‘আয়াসোফিয়া’ সুলতান মুহাম্মাদ আল-ফাতিহের একটি আমানত। আর এই আমানতের রক্ষণাবেক্ষণের বিশাল গুরুদায়িত্ব এরদোগানের চাইতে ভালো আর কে পালন করতে পারবেন!

সূত্র: আনাদোলু

আরও সংবাদ

গঙ্গায় ছুঁড়ে ফেলা হচ্ছে করোনা রোগীর লাশ!

গঙ্গায় ছুঁড়ে ফেলা হচ্ছে করোনা রোগীর লাশ!
ভারত জুড়েই বেড়ে চলেছে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা। এবার মৃতদের তথ্য গোপনের তাগিদে ভারতে করোনা আক্রান্ত রোগীদের লাশ গঙ্গা নদীতে ফেলে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে।

ভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম জানায়, ক্রমবর্ধমান লকডাউনে কোভিড রোগীদের লাশ নিয়ে চূড়ান্ত অমানবিকতার অভিযোগ উঠেছে। করোনায় মৃতদের তথ্য গোপন করতে একাধিক দেহ গঙ্গায় ফেলে দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ঘটনার একাধিক ছবি প্রকাশ্যে এসেছে। সেই ছবিতে দেখা গেছে, পাটনার গঙ্গায় নৌকা করে এনে ফেলে দেয়া হচ্ছে একাধিক লাশ। যদিও ওই লাশগুলো করোনা আক্রান্তদেরই কিনা, তা নিয়ে কোনো প্রমাণ এখনও পর্যন্ত মেলেনি।

ছবিতে দেখা গেছে, নীল প্লাস্টিকে মোড়া লাশ গঙ্গায় ছুড়ে ফেলা হচ্ছে। বিহারের বিরোধীদের দাবি, ওই লাশ করোনা আক্রান্তেরই। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি গোপন করতেই এমন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তাদের।

গঙ্গায় লাশ ফেলে দেয়ার ছবিগুলো তুলেছিলেন ‘হিন্দুস্থান টাইমস’-এর ফটোসাংবাদিক পারওয়াজ খান। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি ৭ জুলাই কালীঘাটে গিয়েছিলাম গঙ্গার পানিস্তরের ছবি তুলতে। দুপুর নাগাদ আমি স্পষ্টতই দেখতে পাই, তিনজন মানুষ গঙ্গায় লাশ ছুড়ে ফেলছেন। কিন্তু আমি নিশ্চিতভাবে বলতে পারব না, ওই দেহ করোনা আক্রান্তেরই।’
তবে এ ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে বিহার সরকার। কর্নাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, গুজরাট, পশ্চিমবঙ্গের পর এবার বিহারেও করোনায় আক্রান্ত মৃতদের লাশ লাশ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠলো।