চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের গভীর বন্ধুত্বে শঙ্কায় ভারত, সামলাতে পাঠাচ্ছে নতুন রাষ্ট্রদূত!

চীনের সঙ্গে বাংলাদেশের গভীর বন্ধুত্বে শঙ্কায় ভারত, সামলাতে পাঠাচ্ছে নতুন রাষ্ট্রদূত!
ভারতের সঙ্গে চীনের সংঘাত যত বাড়ছে ততই যেন প্রতিবেশী বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক মজবুত করার চেষ্টা করছে বেজিং এমনটাই বলছে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো।

তারা জানাচ্ছে, এমন মধুর সম্পর্ক যা ভারতের কাছে অত্যন্ত চিন্তার বিষয়। কারণ প্রতিবেশী নিয়ে ইদানীং ভারতের চিন্তা বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই। এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ‘হাতছাড়া’ হয়ে গেলে আরও কঠিন অবস্থার মুখে পড়তে হতে পারে ভারতকে।

তাই সম্পর্কের শিথিলতা ঝেড়ে এবার বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত পরিবর্তনের রাস্তায় হাঁটতে চলেছে ভারত। ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময় জানায়, বাংলাদেশে নিযুক্ত বর্তমান রাষ্ট্রদূত রিভা গঙ্গোপাধ্যায় দাসকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে নয়াদিল্লিতে। তাঁকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) পদে বসানো হচ্ছে।

আর ঢাকায় পাঠানো হচ্ছে কুটনীতিবিদ বিক্রম ডরাইস্বামীকে। উল্লেখ্য, সিএএ, রোহিঙ্গা, তিস্তা জলবণ্টন চুক্তির মতো একাধিক বিষয় নিয়ে ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের টানাপোড়েন চলছে। এই পরিস্থিতিতে কূটনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে ডরাইস্বামীকে পাঠানো হচ্ছে ঢাকায়

ভারতীয় গণমাধ্যমের ভাষায়, এমন টানাপোড়েনের সুযোগ নিয়ে অবশ্য বাংলাদেশের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ রেখে চলেছে চিন। তারা আরও জানায়, বিভিন্ন ক্ষেত্রে ঢাকায় লগ্নির পাশাপাশি সে দেশের গ্রামীণ বাজারগুলিতেও পণ্য নিয়ে হাজির হচ্ছেন চিনা ব্যবসায়ীরা।

এমনকি করোনা পরিস্থিতিতে চিকিৎসা সরঞ্জাম পাঠিয়ে বারবার বাংলাদেশকে বার্তা পাঠিয়েছে চিন। বাংলাদেশের সরকারি স্তর থেকেও বারবার চিনকে ‘ঘনিষ্ঠ বন্ধু’ বলে উল্লেখ করা হচ্ছে।

ভারতীয় গণমাধ্যমের ভাষায়, সীমান্ত নিয়ে ভয়াবহ খারাপ অবস্থা ভারতের। পাকিস্তানকে নিয়ে নতুন করে কিছুর বলার নেই। ভারতীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের ভাষ্য,

এমন পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ভারতের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রতিবেশী। সেই প্রতিবেশীই যেন কোনওভাবে ‘শত্রুপক্ষের’ সঙ্গে হাত না মেলায়, তা নিশ্চিত করতে চাইছে ভারত এমনটাই জানাচ্ছেন তারা।