চীনের সাথে শুধু লাদাখে নয়; ভারত মহাসাগরেও উদ্বিগ্ন মোদি সরকার

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রের বক্তব্য, লাদাখের কাছে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার ওপর এই মুহূর্তে সবচেয়ে বেশি সামরিক নজর থাকলেও একইভাবে ভারত মহাসাগর নিয়েও উদ্বিগ্ন দিল্লি। গত এক বছরে সেখানে নজরদারি এবং আধিপত্য ক্রমশ বাড়ানোর চেষ্টা করছে বেইজিং।

গলওয়ানে সংঘর্ষের কয়েক দিন আগেই চীনের পিপল’স লিবারেশন আর্মি পিএলএ’র নৌবাহিনী ভারত মহাসাগরে দু’টি ক্ষেপণাস্ত্র নিরোধক ব্যবস্থা মজুত করা জাহাজ ছাড়ে। ওই একই এলাকায় পানির তলায় কাজ করতে পারে এমন এক ঝাঁক ড্রোনও চীন সম্প্রতি ছেড়েছে— এই রিপোর্ট নিয়েও উদ্বিগ্ন ভারত।

আন্দামান ও নিকোবরের কাছে ভারতের নিজস্ব ইকনমিক জোনের মধ্যে গত বছরের নভেম্বরে একটি চীনা জাহাজকে ধাওয়া করেছিল ভারত। চীন সে সময় বলে, জলদস্যুদের পাহারা দেওয়ার জন্যই মাঝে মাঝে টহলদারি দেওয়া হয়। কিন্তু তাতে সংশয় কাটেনি ভারত ও জাপানের মতো দেশের।

সূত্র: আনন্দবাজার

বুলগেরিয়ায় ৭ বছর বয়সে একত্রে ১৭ শিশুর হিফজ সম্পন্ন হওয়ায় দেওয়া হলো বিশেষ সম্মাননা

বিগত ৭০ বছরের মধ্যে এই প্রথম বুলগেরিয়ায় অন্তত ১৭ টি শিশু একত্রে পবিত্র কোরআনে কারিমের হিফজ সম্পন্ন করেছে। এ উপলক্ষ্যে দেশটির রাজধানী ও বৃহত্তম শহর সোফিয়ায় একটি আড়ম্বরপূর্ণ কোরআন-খতম অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এখানে এসব শিশুদের দেয়া হয় বিশেষ সম্মাননা।

সোমবার (২৯ জুন) তুরস্কের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আনাদুলু এজেন্সি আরবির অনলাইন সংস্করণের এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

খবরে বলা হয়, সোফিয়ার একমাত্র বানিয়া বাশা মসজিদের সন্নিকটের একটি পার্কে অনুষ্ঠিত ১৭ খুদে হাফেজের কোরআন খতমের অনুষ্ঠানটিও বিগত ৭০ বছরে এই প্রথম। অনুষ্ঠানে কোরআন তিলাওয়াতের পাশাপাশি মাসনুন দোয়া, ইসলামিক নাশিদ ও ঐতিহাসিক শের-আশআরের মুগ্ধকর পরিবেশনাও উপস্থাপিত হয়।

এ প্রসঙ্গে বুলগেরিয়ার মুসলমানদের ধর্মীয় বিষয়ক প্রধান ও সোফিয়ার গ্র‍্যান্ড মুফতি শায়েখ মুস্তফা ইজবিশতালি আনন্দ প্রকাশ করে বলেছেন, এটি সত্যিই সৌভাগ্যের যে, নয় বছর আগে প্রতিষ্ঠিত একটি ইসলামিক ইনস্টিটিউট থেকে একসঙ্গে ১৭ জন শিশু-কিশোর হাফেজ হয়ে বের হল, আমি তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করি।

সম্মাননা অনুষ্ঠানে বুলগেরিয়ার বিশিষ্ট দীনি ব্যক্তিবর্গের পাশাপাশি সোফিয়ায় তুর্কি দূতাবাসের ধর্মীয় উপদেষ্টা মুহম্মদ গুনতুসও উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, বুলগেরিয়া দক্ষিণ-পূর্ব ইউরোপের একটি রাষ্ট্র। এটি বলকান উপদ্বীপের পূর্ব পাশে ইউরোপ ও এশিয়ার মিলনস্থলে অবস্থিত। পূর্বে কৃষ্ণসাগর, দক্ষিণে গ্রিস ও তুরস্ক।

পশ্চিমে সার্বিয়া ও মন্টিনিগ্রো এবং মেসিডোনিয়া ও রোমানিয়া অবস্থিত। জনসংখ্যা প্রায় ৮০ লাখ। এদের মধ্যে ২০১১ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী মুসলমানের সংখ্যা পাঁচ লাখ ৭৭ হাজার ১৩৯ জন, যা দেশের মোট জনসংখ্যার আট ভাগের কাছাকাছি। সূত্র: আনাদুলু এজেন্সি আরবি