মহামারি করোনায় স্বামী সন্তানের ভালবাসার মাঝে ‘কাচের দেয়াল’

বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া মহামারি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) বৃহস্পতিবার (১৯ মার্চ) সকাল পর্যন্ত একদিনে ৯৭৭ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। এতে মোট মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৯৬১ জনে পৌঁছেছে। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৮৫ হাজার ৬৭৩ জন।

করোনা আতঙ্কের মাঝে মানুষের প্রতিদিনের জীবনে পরিবর্তনও এসেছে। কার্লি বয়েড নামের একজন তরুণীর জীবনেও এসেছে পরিবর্তন। চলতি সপ্তাহে বাগদান সেরেছেন তিনি। এই খবরটি জানেন না তার দাদা। তাই নিজের আনন্দ ভাগ করে নিতে তার কাছে যান কার্লি।

৮৭ বছর বয়সী কার্লির দাদা শেলটন মাহালা প্রিমিয়ার লিভিং অ্যান্ড রিহ্যাব সেন্টারে থাকেন। করোনা আতঙ্কে নর্থ ক্যারোলিনায় অবস্থিত এই রিহ্যাবটিতেও প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু নাতনির মন কিছুতেই মানছিল না। কার্লি বলেন, ‘আমি খুব চাইছিলাম দাদাকে বাগদানের খবরটা দিতে। তার স্মৃতিশক্তি লোপের রোগ রয়েছে। তার কাছে কোনো ফোন না থাকায়, যোগাযোগেরও কোনো উপায় নেই।’

চীনের চেয়ে ইউরোপীয় দেশগুলোতে প্রতিদিন করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুহার বাড়তে থাকায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রস অ্যাডানম গেব্রিয়াসিস ঘোষণাটি দেন।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, শুধু চীনের মূল ভূখণ্ডেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৯২৮ এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ২৪৫ জনের। চীনের পর সবচেয়ে বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। দেশটিতে একদিনেই ৪৭৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৯৭৮ জনে। এমন প্রেক্ষাপটে দেশটিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩৫ হাজার ৭১৩ জনে দাঁড়িয়েছে। তাই দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেছে দেশটির সরকার।