ভারতে গরুর গুঁতোয় পাঁজর ভাঙে আইসিইউতে বিজেপি এমপি লীলাধর বাঘেলা!

গরু নিয়ে মাতামাতির শীর্ষে রয়েছে ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। সেই বিজেপি পার্টিরই এক এমপি রাস্তায় গরুর গুঁতো খেয়ে পাঁজর ভেঙে হাসপাতালে। আহত ওই এমপির নাম লীলাধর বাঘেলা। তিনি গুজরাটপ্রদেশের একটি আসন থেকে নির্বাচিত লোকসভার এমপি।

তিনি এখন হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যাকেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, লীলাধরের পাঁজরের দুটি হাড় ভেঙে গেছে। তার মাথায় রক্ত জমাট বেঁধেছে। এই ঘটনার পর গান্ধীনগর পৌরসভা কর্তৃপক্ষ রাস্তায় থাকা ৪৪টি গরু ধরে নিয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বাড়ির পাশেই রাস্তার একটি গরুকে রুটি খাওয়াতে গিয়েছিলেন লীলাধর। কিন্তু আচমকাই গরুটি তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে শিং দিয়ে গুঁতোতে শুরু করে। তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় গান্ধীনগর বেসামরিক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু অবস্থার অবনতি হওয়ায় অন্য আরেকটি হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মাটির নিচের গোপন কারাগারে ২৪ বছর পরে খুঁজে পাওয়া গেল সুদানের সাবেক মন্ত্রীকে!

আফ্রিকান দেশ সুদানের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী কর্নেল ইব্রাহিম ছামসাদিনের একটি হৃদয়বিদারক ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হচ্ছে, স্বৈরশাসনের প্রতিবাদ করায় প্রায় ২৪ বছর আগে জেলে পাঠানো ইব্রাহিম ছামসাদিনকে সুদানের রাজধানী খার্তুমের একটি মাটির নিচের গোপন কারাগারে খুঁজে পাওয়া গেছে।

ছবিটিতে দেখা যায়, রোগা-মলিন চেহারায় অপুষ্টিতে ভোগা একজন বৃদ্ধা খালি শরীরে বালির উপর বসে আছেন। তার পরনে একটি জীর্ণশীর্ণ লুঙ্গি। অসহায় দৃষ্টিতে তিনি তাকিয়ে আছেন ক্যামেরার দিকে। ছবিটিতে দেখা যায়, অন্ধাকারে আলো ফেলে ছবি তোলা হয়েছে। সাবেক এই মন্ত্রীকে আটকে রাখা স্থানটি একটি গুহা।

সেই সাথে ইব্রাহিম ছামসাদিনের ঘুমন্ত অবস্থার ছবিও প্রকাশ পায়। সেখানে দেখা যায়, এক টুকরো কাঠের উপর মাথা রেখে বালির উপর শুয়ে আছেন সুদানের সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী। জানা যায়, সুদানের স্বৈরশাসক ওমর আল-বশির তার অবৈধ শাসনের প্রতিবাদ করায় ১৯৯৫ সালে দেশটির তৎকালীন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইব্রাহিম ছামসাদিনকে জেলে পাঠান।

শুধু তাই নয়, ২০০৮ সালে সুদান সরকার রাষ্ট্রীয়ভাবে ঘোষণা করে যে, সাবেক প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ইব্রাহিম ছামসাদিন বিমান দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। আফ্রিকাভিত্তিক একাধিক সংবাদ মাধ্যমের তথ্য অনুসারে, সম্প্রতি সুদানের রাজধানী খার্তুমের একটি মসজিদের আন্ডারগ্রাউন্ডে একটি গোপন কারাগারের খোঁজ পাওয়া যায়।

সেখানে ইব্রাহিম ছামসাদিনকে খুঁজে পাওয়া যায়। ইব্রাহিম ছামসাদিনের বর্তমান অবস্থার সাথে সাথে তার মন্ত্রী থাকাকালীন একটি ছবিও প্রকাশ করে আফ্রিকান গণমাধ্যমগুলো। উল্লেখ্য, দেশটির সাবেক স্বৈরশাসক ওমর আল-বশির নিজেও বর্তমানে জেলখানায় আছেন।