লকডাউনে শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দেয়া সেই ম্যাজিস্ট্রেট মারা গেছেন

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যের পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি পৌঁছে দেয়া ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট দেবদত্তা রায় মারা গেছেন। পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার চন্দননগরের মহকুমা দফতরের ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট ছিলেন দেবদত্তা।

সোমবার সকালে হুগলির শ্রীরামপুর শ্রমজীবী কোভিড হাসপাতালে মারা যান তিনি। তার বাড়ি কলকাতার দমদমের মতিঝিল এলাকায়। লকডাউনের সময় ডানকুনি রেলস্টেশনে যেসব পরিযায়ী শ্রমিক নেমেছিলেন, তাদের বাড়ি পৌঁছনোর দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি।

দেবদত্তার মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে তার পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এই ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটকে কোভিড-যুদ্ধের ‘সামনের সারিতে থাকা এক সাহসী সেনানী’ হিসেবেও উল্লেখ করেছেন।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসে তার। তবে তিনি হাসপাতালে ভর্তি হননি। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা স্বাস্থ্য দফতরের পরামর্শে বাড়িতেই চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

রোববার তার শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে শ্রীরামপুর শ্রমজীবী হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। শরীরে অক্সিজেনের মাত্রাও মারাত্মকভাবে কমে গিয়েছিল তার। সোমবার সেখানেই মারা যান তিনি।

দেবদত্তার মৃত্যুতে হুগলি জেলা প্রশাসনিক মহলে শোকের ছায়া নেমে আসে। চন্দননগরের মহকুমাশাসক মৌমিতা সাহা, শ্রীরামপুরের মহকুমাশাসক সম্রাট চক্রবর্তী হাসপাতালে ছুটে যান। দেবদত্তার স্বামী পবিত্রও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

আরও সংবাদ

আয়া সোফিয়া যাদুঘরকে মসজিদ ঘোষণার প্রতি সমর্থন জানাল রাশিয়া

তুরস্ক সরকারের পক্ষ থেকে আয়া সোফিয়া জাদুঘরকে মসজিদ হিসেবে ঘোষণা করার পদক্ষেপের প্রতি সমর্থন ঘোষণা করেছে রাশিয়া।রুশ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ভেরশিনিন বলেছেন, এটি সম্পূর্ণ তুরস্কের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং এতে বাইরের কোনো দেশের হস্তক্ষেপ কাম্য নয়।

তিনি এমন সময় এ বক্তব্য দিলেন যখন পশ্চিমা দেশগুলোর পাশাপাশি রাশিয়ার অর্থোডক্স চার্চের পক্ষ থেকেও তুর্কি সরকারের এ পদক্ষেপের নিন্দা জানানো হয়েছে।

রুশ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিষয়টি নিয়ে বিশ্বব্যাপী যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া হয়েছে সে বিষয়ে সম্যক অবহিত হয়েই বলতে চাই, একটি দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করা উচিত নয়।

রুশ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ভেরশিনিন
এর আগে রাশিয়ার ভলোকলামস্ক শহরের অর্থোডক্স চার্চের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হয়, আয়া সোফিয়া জাদুঘরকে মসজিদ হিসেবে ঘোষণা করা খ্রিস্টানদের মুখে চপেটাঘাতের শামিল।

তুরস্কের সুপ্রিম কোর্টের এক রায়ের সূত্র ধরে দেশটির প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান গত শুক্রবার তার দেশের আয়া সোফিয়া জাদুঘরকে মসজিদ হিসেবে ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, শিগগিরই এই ঐতিহাসিক স্থাপনা মুসলমানদের নামাজ আদায়ের জন্য খুলে দেয়া হবে। তুর্কি জনগণ এরদোগানের এ পদক্ষেপকে স্বাগত জানালেও পশ্চিমা দেশগুলো এর তীব্র বিরোধিতা করে।#

সুত্রঃ পার্সটুডে