ভারতের স্বর্ণ মন্দিরের লঙ্গরখানায় ৩৩ টন গম দান করলেন মুসলিমরা

পঞ্জাবে সঙ্গরুর জেলায় মালেরকোটলার মুসলিমরা অমৃতসরের স্বর্ণ মন্দিরে ৩৩ টন গম দান করলেন। লঙ্গরখানায় মানুষের খাবার জন্য এই গম তুলে দেওয়া হয় মন্দির কর্তৃপক্ষের হাতে। আনুষ্ঠানিক ভাবে এই গম তুলে দেন ‘শিখ-মুসলিম সাঁঝা মঞ্জ’-এর সভাপতি নাসির আখতার।

অশোক সিংহ গারচা নামে এক ব্যক্তি গতকাল, শুক্রবার একটি টুইট করেছেন। ছবিটিতে যে তারিখ দেখা যাচ্ছে সেটিও শুক্রবারের। গম নিয়ে আসার প্রতিনিধিদের স্বর্ণ মন্দিরে অভ্যর্থনা জানান সেখানকার চিফ ম্যানেজার মুখতিয়ার সিংহ। তাঁদের হাতে সিরোপা এবং সাম্মানিক পোশাক তুলে দেওয়া হয়।

ছবির সঙ্গে পোস্টে অশোক লিখেছেন এই গম দান করার কথা। আর ছবিতে দেখা যাচ্ছে, এক দল মুসলিম সম্প্রদায়ের মানুষ লঙ্গরখানায় বসে খাচ্ছেন। অশোক জানিয়েছেন, গম দান করতে আসা মুসলিম ভাইরা লঙ্গরখানায় অংশ নিয়েছেন। আর তাঁদের খাবার পরিবেশন করছেন শিখ সেবাদাররা।

ইতিমধ্যেই এই ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। ২৪ ঘণ্টারও কম সময়ে পোস্টটি ৪৫ হাজারের বেশি লাইক পেয়েছে। সেই সঙ্গে সমানে চলছে শেয়ার এবং কমেন্ট। সূত্র: দ্যি ট্রিবিউন, আনন্দবাজার

কাশ্মীরে ভারতীয় সেনারা গণহত্যা চালাচ্ছে: ইমরান খান

ভারত নিয়ন্ত্রত কাশ্মীরে মুসলমানদের বিরুদ্ধে দেশটির সেনাবাহিনী গণহত্যা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। মুসলমানদের বিরুদ্ধে এ ধরণের গণহত্যার পরিণতি ভালো হবে না বলে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে সতর্ক করেছেন তিনি।

আজ রবিবার কাশ্মীর ইস্যুতে ইমরান খান বলেছেন, কাশ্মীরের পরিস্থিতি ক্রমেই বিপর্যয়কর হয়ে উঠছে। সেখানে ভারতীয় সামরিক বাহিনী গণহারে মুসলমানদের হত্যা করছে।

ইমরান বলেন, বসনিয়া-হার্জেগোভিনার সেব্রেনিৎসায় যেভাবে মুসলমানদের গণহারে হত্যা করেছিল সার্ব বাহিনী, ঠিক সে ধরণের পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে যাচ্ছে কাশ্মীরি জনগণ।

ইমরান খান আরো বলেন, ভারতীয় সেনাবাহিনী কোন ধরনের আইনের তোয়াক্কা না করে মানুষ হত্যা অব্যাহত রেখেছে। কাশ্মীরের মুসলমানদের হত্যার ক্ষেত্রে তাদেরকে কোনো ধরণের আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে হচ্ছে না।

তিনি বলেন, কাশ্মীরে বর্তমানে ৮০ লাখ মানুষের জন্য ৮ লাখ সেনা মোতায়েন করে রাখা হয়েছে। ৮০ লাখ মানুষকে তারা অবরুদ্ধ করে রেখেছে। এ কারণে গত প্রায় এক বছর ধরে কাশ্মীরিরা তাদের নিত্য দিনের মৌলিক চাহিদা মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে।

কাশ্মীরের জনগণ সেখানে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ইশতেহার বাস্তবায়নের দাবি জানিয়ে আসছে। নিরাপত্তা পরিষদের ইশতেহারে গণভোটের মাধ্যমে কাশ্মীর অঞ্চলের ভবিষ্যত নির্ধারণের কথা বলা হয়েছে।

কিন্তু ভারত সরকার জাতিসংঘের ইশতেহার বাস্তবায়ন করতে অসম্মতি জানিয়ে আসছে। এ কারণে ভারত সরকার এখন পর্যন্ত সেখানে গণভোট আয়োজন করেনি। সূত্র: পার্সটুডে