আন্তর্জাতিক আদালতে কাতারের কাছে হেরে গেল সৌদি জোট

কাতারের আকাশপথ অবরোধের ঘটনায় আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিজে) হেরে গেছে সৌদি জোট।

এ সংক্রান্ত মামলায় আপিল প্রত্যাখ্যান করে কাতারের প্রতি সমর্থন দিয়েছে নেদারল্যান্ডসভিত্তিক জাতিসংঘের এই শীর্ষ আদালত। খবর আলজাজিরার।

আইসিজে প্রেসিডেন্ট আবদুলওয়াকি আহমেদ ইউসুফ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান সংস্থা বা আইসিএওর এক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ওই আপিল করেছিল অবরোধকারী চার দেশ- সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মিসর ও বাহরাইন।

২০১৮ সালে অবরোধকারী দেশগুলোর বিরুদ্ধে বেসামরিক বিমান চলাচলসংক্রান্ত আন্তর্জাতিক চুক্তি লঙ্ঘনের অভিযোগ করে আইসিএও।

তবে অবরোধকারী দেশগুলোর দাবি, এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য আইসিএও যথাযথ কর্তৃপক্ষ নয়। বিষয়টি নিয়ে শেষ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক আদালতের শরণাপন্ন হয় সৌদি জোট। কিন্তু সেখানেও তারা হেরে গেছে।

মঙ্গলবারের রায়ে আদালত বলেছেন, এ ঘটনায় আন্তর্জাতিক বেসামরিক বিমান সংস্থা সিদ্ধান্ত দিতে পারে। সৌদি জোটের দাবি ছিল– আদালত যেন আইসিএওর এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত বাতিল ঘোষণা করে।

আন্তর্জাতিক আদালতের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে কাতার। দোহা বলছে, আদালতের এ রায় আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল সংক্রান্ত নিয়ম লঙ্ঘনের জন্য অবরোধ আরোপকারী দেশগুলোকে বিচারের মুখোমুখি করবে।

২০১৭ সালের ৫ জুন সন্ত্রাসবাদে সমর্থনের অভিযোগ এনে কাতারের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর।

তবে সৌদি জোটের অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে কাতার। দেশটি বলেছে, সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন কয়েকটি আরব দেশ দোহার বিরুদ্ধে প্রকারান্তরে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে।

কাতারের বিরুদ্ধে চার আরব দেশের অন্যায় অবরোধের পর ইরান দেশটিকে নিজের আকাশ ব্যবহারের সুযোগ দেয় এবং নানাভাবে সহযোগিতা করে। কাতার সরকার তাদের বিপদে সহযোগিতার জন্য ইরানকে ধন্যবাদ জানিয়েছে।