পা নেই, হাতে ভর করে পবিত্র কাবা ৭ বার তাওয়াফ করল এই কিশোর!।

ইচ্ছা শক্তি আর ইসলামেরপতি ভালবাসা থাকলে কি না সম্ভব। দুই পা ছাড়া এক চতুর্থাংশ শরীর নিয়ে জন্ম হয়ে’ছিলকাতারের প্রতিবন্ধী কিশোর গানিম আল মুফতার।

এখন সে হু’ইল চেয়ারে করে চলাচল করে সে।এদিকে পবিত্র কাবাশরীফের কাছে আসলে তিনি ই’সলাম ধর্মের প্রতি আবেগঘন ভালোবাসা ব্যক্ত করেছে।

এ সময় তি’নি হু’ইল চেয়ার থেকেনেমে দুই হাতে ভর দিয়ে কাবা শরীফ তাওয়াফ করেছে প্রতিবন্ধী কিশোর গানিম আল মুফতার।

মা’গরিব না’মাজের সময়সাতবার কাবা তাওয়াফ করে প্রতিবন্ধী গানিম। সামাজিক মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এই তাওয়াফেরভিডিও প্রচারের পর বেশ সাড়াপড়েছে।

জানা যা’য়, কি’শোর গানিমের স্বপ্ন ছিল নিজহাতে পবিত্র কাবা শরীফ তাওয়াফ করা এবং পবিত্র হাজরেআসওয়াদ পাথরে চুম্বন করা।আর তার এমন স্বপ্নের কথা জেনে তা পূরণে তার জন্য ওমরা পালনের ব্যবস্থা করেন সৌদিপড়েছে।

জানা যায়, কি’শোর গা’নিমের স্বপ্ন ছিল নিজহাতে পবিত্র কাবা শরীফ তাওয়াফ করা এবং পবিত্র হাজরেআসওয়াদ পাথরে চুম্বন করা।

আর তার এ’মন স্ব’প্নের কথা জেনে তা পূরণে তার জন্য ওমরা পালনের ব্যবস্থা করেন সৌদিপর্যটন এবং জাতীয় ঐতিহ্য কমিশনের চেয়ারম্যান প্রিন্স সুলতান বিন সালমান বিন আবদুল আজিজ।

এদিকে গা’নিমপ্র’তিবন্ধী হওয়ায় কাবা তাওয়াফসহ ওমরা পালনে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থার প্রয়োজন ছিল। এজন্য একটি বিশেষ টিমেরমাধ্যমে গানিম ও তার পরিবারের সদস্যদের মক্কায় পৌঁছানোর পর থেকে ওমরা পালনের শেষ পর্যন্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়।

এ সময় ম’ক্কায় গা’নিমকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান প্রিন্স সুলতান। এছাড়া মক্কার গ্র্যান্ড মসজিদের ইমাম শেখমাহের আল-মুয়াকলির পেছনে গানিমদের নামাজ পড়ানোর ব্যবস্থা করা হয়।

এদিকে প্রতি’বন্ধী গা’নিম হাত দিয়ে ভরদিয়ে পবিত্র কাবা তাওয়াফ করতে পারায় দারুণ খুশি। এ জন্য প্রিন্স সুলতান ও শেখ মাহেরে প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে এই কিশোর।