পাকিস্তানেও ইরানের মতো ইসলামি বিপ্লব দরকার: জায়ামাতের আমির

পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামির আমির ও সিনেটর সিরাজুল হক বলেছেন, ইরানের মতো ইসলামি বিপ্লব চায় পাকিস্তানি জনগণ। পেশোয়ার শহরে এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সিরাজুল হক আরও বলেন, বিশ্বে এ পর্যন্ত অনেক বিপ্লব হয়েছে কিন্তু একমাত্র ইরানের ইসলামি বিপ্লবই তার প্রকৃত অবস্থান ধরে রাখতে পেরেছে এবং ইরানি জাতির জন্য বড় বড় সাফল্য এনে দিয়েছে।

পাকিস্তান জামায়াতে ইসলামির প্রধান বলেন, পাকিস্তানেও কুরআন ও ইসলাম ভিত্তিক ব্যবস্থা চালু করতে হবে। ব্রিটেনের রেখে যাওয়া ঔপনিবেশিক আইন পরিবর্তন করে ইসলামি আইন বাস্তবায়ন করতে হবে।

ইসলামের ভিত্তিতে পাকিস্তানের মানুষকে জীবন পরিচালনার সুযোগ দেওয়ার আহ্বান জানান সিরাজুল হক।

সুত্র: নৈনিক সকাল

আরো পড়ুন: কোরআন প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পেলেন মাশরাফি কন্যা হুমায়রা

আহলুল হুফফাজ ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ আয়োজিত কোরআন তিলাওয়াত প্রতিযোগিতায় পুরস্কার পেলেন মাশরাফি কন্যা হুমায়রা মুর্তজা। তার তিলাওয়াতে মুগ্ধ হয়ে অনুষ্ঠানের সভাপতি পাঁচ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেন। কুরআন পাঠ শেষে মাশরাফি-কন্যার ভূয়সী প্রশংসা করেন অনুষ্ঠানের সঞ্চালক।

শনিবার (২৭ এপ্রিল) বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে কোরানিক ভয়েস প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফিনালেতে হুমায়রার তিলাওয়াতে মুগ্ধ হয়ে পুরস্কারের ঘোষণা দেন অনুষ্ঠানের উপস্থাপক।

হুমায়রার কোরআন তিলাওয়াতের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ করেন মাশরাফি স্ত্রী সুমনা হক সুমি। এই অনুষ্ঠানে হুমায়রার তিলাওয়াতের ভিডিও ও কয়েকটি ছবি জুড়ে দিয়ে মাশরাফির স্ত্রী ফেসবুকে লেখেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, সবার দোয়ায় এভাবেই বেড়ে উঠুক হুমায়রা।’

২০০৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর নড়াইলের চিত্রাপাড়ের মেয়ে সুমনা হক সুমিকে বিয়ে করেন মাশরাফি। বিয়ের ৫ বছরের মাথায় প্রথমবারের মতো বাবা হন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক। ২০১১ সালের ১৮ মার্চ মাশরাফি ও সুমনা দম্পতির ঘর আলো করে জন্ম নেয় হুমায়রা মুর্তজা।