আমরা কোনো ভারতীয় সেনাকে আটক করিনি বা মুক্তিও দেইনি: চীন

ভারতের কোনো সেনাকে আটক বা মুক্তির খবর নাকচ করেছে চীন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, ‘আমরা ভারতের কোনো সেনাকে আটক করিনি।”

এর আগে ভারতের বার্তা সংস্থা পিটিআইসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম ভারতের ১০ সেনার মুক্তির খবর দিয়েছিল। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের কাছে এই খবর প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, আটকের ঘটনা ঘটেনি।

তিনি বলেন, সত্য-মিথ্যা পরিষ্কার। দায় ভারতের। চীনা মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান আরও বলেন, দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক ও সামরিক চ্যানেলে যোগাযোগ অব্যাহত রয়েছে।

চীনের সঙ্গে দীর্ঘ মেয়াদে দ্বিপক্ষীয় সুসম্পর্ক বজায় রাখতে ভারত তাদের সঙ্গে কাজ করতে সক্ষম হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। সীমান্তের গালওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষের পর চীন ১০ ভারতীয় সেনাকে আটক ও পরে মুক্তি দিয়েছে বলে ভারতীয় গণমাধ্যমে আজই খবর বেরিয়েছে।

সোমবার গালওয়ান উপত্যকায় ভারত ও চীনের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে অন্তত ২০ ভারতীয় সেনা নিহত ও ৭৬ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছে নয়া দিল্লি। আহত সেনাদের মধ্যে ১৮ জন লেহ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন, বাকিদের চিকিৎসা চলছে অন্যান্য হাসপাতালে।

সংঘর্ষে চীনের হতাহতের সংখ্যাও ব্যাপক বলে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো দাবি করলেও বেইজিং এ বিষয়ে মুখ খোলেনি।

১৯৯৬ সালে হওয়া চুক্তিতে ভারত ও চীন লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল (এলএসি) বা প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা ঘিরে একে অপরের বিরুদ্ধে আগ্নেয়াস্ত্র ও বিস্ফোরক ব্যবহার না করতে সম্মত হয়েছিল। সাড়ে চার দশক ধরে সীমান্তে দুই পক্ষের সেনাদের মধ্যে মারামারি ও ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটলেও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেনি।

উত্তেজনা প্রশমনে আলোচনার পাশাপাশি ভারত ও চীন লাদাখ সীমান্ত ঘিরে শক্তি বাড়াচ্ছে বলেও বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। গতকাল ভারতের বিমানবাহিনী ১২টি সুখোই ও ২১টি মিগ-২৯ যুদ্ধবিমান চেয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের কাছে প্রস্তাব জমা দিয়েছে। যা কিনতে খরচ হবে পাঁচ হাজার কোটি টাকা। সুত্র: পার্সটুডে

জাকির নায়েককে ফেরত চায় ভারত!

ইসলামি স্কলার জাকির নায়েককে মালয়েশিয়ার কাছে ফেরত চেয়েছে ভারত। তার বিরুদ্ধে সবশেষ অভিযোগ হলো, ফেব্রুয়ারির রায়টে ইন্ধনদাতা এক ব্যক্তির সঙ্গে তিনি দেখা করেছেন৷

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য কুইন্ট বুধবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে পুলিশের একটি আবেদনের ভিত্তিতে বলেছে, খালিদ সাইফি নামের একজনের সঙ্গে গত ফেব্রুয়ারিতে দিল্লি রায়টের বাইরে সাক্ষাৎ করেছিলেন৷ সাইফি তার এজেন্ডা ছড়িয়ে দিতে নায়েকের সহযোগিতা চেয়েছিলেন৷ ১৫ জুন এই আবেদন দাখিল করে পুলিশ৷

এর আগে গত ১৪ মে ভারত নায়েককে মালয়শিয়ার কাছ থেকে ফেরত চায়৷ রক্ষণশীল এই ভারতীয় ইসলাম প্রচারক তিন বছরেরও বেশি সময় ধরে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশটিতে নির্বাসিত আছেন৷ সেখানে তার স্থায়ীভাবে থাকার অনুমতি রয়েছে৷

জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে বেশ কিছু অভিযোগ রয়েছে৷ সবচেয়ে বড় অভিযোগটি iপ্রায় আড়াইশ কোটি টাকার মানি লন্ডারিংয়ের৷

এছাড়া নানা সময়ে তার বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক কথা বলার অভিযোগ রয়েছে৷ তবে সব অভিযোগই অস্বীকার করে এসেছেন তিনি৷

২০১৬ সালের জুলাই মাসে ঢাকায় হলি আর্টিজানের ঘটনায় হামলাকারীদের দু’জন নিব্রাস ইসলাম ও রোহান ইমতিয়াজ তার বক্তব্যের দ্বারা প্রভাবিত ছিল বলে অভিযোগ রয়েছে৷ তবে এই অভিযোগও তিনি বরাবরই অস্বীকার করে আসছেন৷

এ ঘটনার পর তার প্রতি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের নজর পড়ে৷ সে বছরই ভারত ও বাংলাদেশে তার মালিকানাধীন পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়া হয়৷

এরপরপরই তার বিরুদ্ধে আইনের অমান্য করার অভিযোগ আনা হয়৷ ভারতীয় কাউন্টারটেররিজম এজেন্সি নায়েকের বিরুদ্ধে ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ আনে৷ জাকির পালিয়ে যান মালয়শিয়ায়৷

সুন্নি ইসলামের সালাফি মতবাদের প্রচারক জাকির নায়েক৷ তিনি ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশন (আইআরএফ)-এর প্রধান৷